Home / বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি / পুরুষের দৈহিক মিলনে অক্ষমতার কারণ!

পুরুষের দৈহিক মিলনে অক্ষমতার কারণ!

র্তমান প্রেক্ষাপটে প্রায়ই শোনা যায় পুরুষত্বহীনতা তথা পুরুষের অক্ষমতা বা দুর্বলতা। আর এতে উঠতি বয়সের যুবকরা রীতিমতো হতাশ। অন্যদিকে এসব সমস্যাকে পুঁজি করে অপচিকিৎসার হার বেড়েই চলেছে। এসব বিষয়ে সচেতন না হলে হিতে বিপরীত হতে পারে। প্রকৃত অর্থে এটি পুরুষের দৈহিক মিলনের অক্ষমতাকেই বোঝায়।

একে তিন ভাগে ভাগ করা যায় : ইরেকশন ফেইলিউর, পেনিট্রেশন ফেইলিউর, প্রি-ম্যাচুর ইজাকুলেশন। এর প্রধান কারণগুলো হলো- বয়সের পার্থক্য, পার্টনারকে অপছন্দ (দেহ সৌষ্ঠর, ত্বক ও মুখশ্রী), দুশ্চিন্তা, টেনশন ও অবসাদ, ডায়াবেটিস, বিভিন্ন রোগ, রক্তে সেক্স হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, এইডস ভীতি, সেক্স এডুকেশনের অভাব ইত্যাদি। দেখা যায়, উঠতি বয়সের যুবকরা হাতুড়ে ডাক্তারের খপ্পরে পড়ে বা স্বেচ্ছায় বিভিন্ন হরমোন ইনজেকশন নেয় অথবা ভুয়া ওষুধ সেবন করে।

এটি মোটেই কাম্য নয়। কারণ, এর পাশ্ব প্রতিক্রিয়ায় শেষ পর্যন্ত সত্যিকারভাবে পুরুষত্বহীনতার আশঙ্কা দেখা দেয়, যা থেকে পরবর্তীতে আরোগ্য লাভ করা অসম্ভব হয়ে ওঠে। তাই প্রাথমিক অবস্থা থেকেই এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক হতে হবে। অন্যথায় হিতে বিপরীত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ