Home / জেলার খবর / নীলফামারীতে সংঘর্ষে কৃষকলীগ নেতাসহ নিহত ৫

নীলফামারীতে সংঘর্ষে কৃষকলীগ নেতাসহ নিহত ৫

Nilphamari-sm20131214191910

নীলফামারীর রামগঞ্জে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূরের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় সংঘর্ষে কৃষকলীগ নেতাসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন। এতে এএসপিসহ অন্তত ১০০ জন আহত হন।

নিহতরা হলেন- নীলফামারীর টুপামারী ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরী(৫০), লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড বিএনপির সদস্য সিদ্দিক(৪২) ও টুপামারী ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ হোসেন(২৬)। তবে, সিদ্দিককে নিজেদের কর্মী দাবি করেছে জামায়াত।

শনিবার বিকেল ৫টার দিকে সদর উপজেলার টুপামারী ইউনিয়নের রামগঞ্জ ব্রিজ এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় আহতদের মধ্যে ৩ জন সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে মারা যান,  পরর্বতীতে আরও ২জন মারা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেলে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর লক্ষ্মীচাপ কাঁচারী বাজার থেকে নীলফামারী শহরে ফেরার পথে রামগঞ্জ ব্রিজের কাছে জামায়াত-শিবির ও বিএনপির নেতাকর্মীরা তার গাড়ি বহরে হামলা চালায়।

এ সময় বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে আ.লীগ নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল, রাবার বুলেট ও কাদানে গ্যাস ছোড়ে।

সংঘর্ষে নীলফামারীর সহকারী পুলিশ সুপার শফিউল ইসলামসহ অন্তত ১০০ জন আহত হন।

জেলা কৃষকলীগ সভাপতি অক্ষয় কুমার রায় জানান, বিএনপি-জামায়াত-শিবিরের হামলায় কৃষকলীগ নেতা খোরশেদ আলম নিহত হয়েছেন।

লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম রব্বানী জানান, সংঘর্ষে পুলিশ ও আ.লীগ নেতা কর্মীদের হামলায় বিএনপি নেতা সিদ্দিক নিহত হয়েছেন।

এদিকে, এমপি নূরকে সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে শহরের ফুড অফিস সড়কস্থ বাসায় পুলিশ প্রহরায় পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

এ সংঘর্ষের পর নীলফামারীতে বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে।
নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

নীলফামারীর সহকারী পুলিশ সুপার(সদর সার্কেল) শফিউল আলম আজকের নিউজকে নিশ্চিত করে জানান, বিকেল পৌনে ৫টার দিকে রামগঞ্জ ব্রিজের কাছে জামায়াত-শিবির সংসদ সদস্য নূরের গাড়ি বহরে হামলা করলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ