Home / রাজনীতি / নাশকতার আশঙ্কা কূটনৈতিকপাড়ায় বিশেষ নিরাপত্তা

নাশকতার আশঙ্কা কূটনৈতিকপাড়ায় বিশেষ নিরাপত্তা

যে কোনো সময় রাজধানীতে অবস্থিত বিভিন্ন দেশের দূতাবাসে হামলা হতে পারে। দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে খুন করা হতে পারে দূতাবাস কর্মকর্তাদের। এমনই তথ্য রয়েছে গোয়েন্দা সংস্থার হাতে। আর তাই রাজধানীর কূটনৈতিকপাড়া বলে খ্যাত গুলশানে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। থানা পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে নাশকতা রোধে কাজ করছেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।
পুলিশের গোয়েন্দা শাখার ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, বর্তমানে দেশের অবস্থা খুবই নাজুক। দুর্বৃত্তদের বোমা হামলা থেকে রেহাই পাচ্ছে না সরকারের প্রভাবশালী মন্ত্রীদের বাসভবনও। হামলা করা হচ্ছে পুলিশ স্টেশনেও। দুর্বৃত্তদের এখন টার্গেট বিভিন্ন দেশের দূতাবাস। বিদেশিদের কাছে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে খুন করা হতে পারে বেশ কয়েকজন দূতাবাস কর্মকর্তাকে। এমন তথ্য জানার পরপরই থানা পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা
নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়। সন্দেহজনকভাবে গুলশান এলাকায় কাউকে ঘোরাফেরা করতে দেখলেই আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে গুলশানের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হচ্ছে। সন্দেহজনক লোকজনের দেহ তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া র্যাব ও ডিবিসহ দেশের সবক’টি গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা নিয়মিত টহল দিচ্ছেন কূটনৈতিকপাড়ায়।
গোয়েন্দা পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, গত বছর ৫ মার্চ মধ্যরাতে গুলশানে নিজ বাসার কাছে গুলিবিদ্ধ হন সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ আল আলি (৪৫)। পরদিন ভোরে হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হত্যাকাণ্ডের দু’দিন পর গুলশান থানার এসআই মোশারফ হোসেন একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনার পর থেকেই গুলশান এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়। বর্তমানে এ ব্যবস্থাকে আরও অনেক বেশি শক্তিশালী করা হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে সেখানে কেউ অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটাতে পারবে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে গুলশান থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, বর্তমানে দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে। এমন পরিস্থিতিতে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটা স্বাভাবিক। কূটনৈতিকপাড়ায় সব সময়ই নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার ছিল। বর্তমানে তা আরও শক্তিশালী করা হয়েছে। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা থানা পুলিশকে এ ব্যাপারে সহায়তা করছেন।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ