Home / রাজনীতি / আদালতে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে খোকার হুঁশিয়ারি

আদালতে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে খোকার হুঁশিয়ারি

khothumbnail1.thumbnailযে কোনো মূল্যে সরকারের ‘একতরফা’ নির্বাচন রুখে দেয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা। বৃহস্পতিবার সিএমএম আদালতে ২০ দিনের রিমান্ড শুনানির শেষ দিকে নিজে কথা বলতে গিয়ে এ হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

আইনজীবীদের বক্তব্যের পর খোকা নিজে বক্তব্য দিতে কাঠগড়ায় উঠে আসেন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরাও তার বক্তব্য দেয়ার বিরোধিতা করেন। বিচারকও তখন খোকার উদ্দেশে বলেন, ‘যেহেতু আপনার পক্ষে অনেক আইনজীবী বক্তব্য রেখেছেন এবং আদালতের সময়ও শেষ তাই আপনাকে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ দেয়া যাবে না।’

এ বক্তব্যের উত্তরে খোকা বলেন, ‘আমি প্রথমেই বক্তব্য রাখতে চেয়েছিলাম কিন্তু আপনি (বিচারক) পরে বলে আমাকে থামিয়ে দিয়েছেন, তাই আমাকে বলতে দিতে হবে।’ এ কথা বলেই তিনি বক্তব্য দেয়া শুরু করেন।

খোকা বলেন, ‘১৯৭১ সালে পাকিস্তানী সরকার নির্বাচনের মাধ্যমে একটি তাবেদার সরকার প্রতিষ্ঠা করতে চাইলে আমি সাদেক হোসেন খোকা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেদিন পাকিস্তান সরকারের নির্বাচন কমিশন ভবন উড়িয়ে দিয়েছিলাম। তখন সে নির্বাচন আমি রুখে দিয়েছি। বর্তমানে শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা এখন শূন্যের কোঠায়।’

সঙ্গে সঙ্গে সরকার সমর্থক আইনজীবীদের চিৎকার চেঁচামেচিতে খোকার কোনো কথা শোনা যাচ্ছিল না। তবে বক্তব্যের শেষ বাক্যে খোকা আদালতের ডায়াসে থাপ্পর দিয়ে বলেন, ‘যে কোনো মূল্যে এ নির্বাচন রুখবো।’

এদিকে গ্রেপ্তারের পর বর্তমান সরকারের মন্ত্রী হতে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল রিমান্ড শুনানিতে আইনজীবীরা এমন দাবি করলেও খোকা তার বক্তব্যে এর কোনো উল্লেখ করেননি।

খোকাকে আদালতে আনা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সিএমএম আদালতে বিএনপির বিপুল সংখ্যক আইনজীবী অবস্থান নেন। তারা সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন। আদালত অঙ্গনেও নিরাপত্তা জোরদার করতে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ