Home / রাজনীতি / ফের সুশীলদের সমালোচনায় জয়

ফের সুশীলদের সমালোচনায় জয়

আবারো দেশের সুশীলদের কড়া সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি অভিযোগ করেছেন, “সুশীল সমাজের লোকেরা ২০০৬ সালে সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা দখলের প্রস্তাব করেছিলো।”

বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে দেয়া এক স্ট্যাটাসে জয় এমন অভিযোগ করেছেন।

জয় তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ২০০৬ সালের শেষ ভাগের কোনো এক সময় আমি ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদের বাসায় রাতের খাবারের আমন্ত্রণে গিয়েছিলাম। এখন যেসব সুশীল সমাজের লোকেরা আসন্ন নির্বাচন বন্ধ করতে দাবি জানাচ্ছেন তারা প্রায় সবাই সেই আমন্ত্রণে উপস্থিত ছিলেন। বিএনপি জালিয়াতির মাধ্যমে ১ কোটি ৪০ লক্ষ ভুয়া ভোটার দিয়ে একটা ভোটার তালিকা তৈরি করেছিলো এবং সেই সঙ্গে তারা স্থানীয় সরকার নির্বাচনসহ ঢাকা-১০ উপনির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি করেছিলো। আমরা আলাপ-আলোচনা করছিলাম যে, আওয়ামী লীগ নির্বাচন বর্জন করলে কী হতে পারে। সম্প্রতি গোলটেবিল বৈঠকের একজন “বিশিষ্ট” ব্যক্তি তখন সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা দখলে নেয়ার কথা প্রস্তাব করেছিলো।”
image_62187_0

তিনি আরো লিখেছেন, “আমি বিস্মিত হয়েছিলাম। আমি যুক্তি দেখিয়েছিলাম যে, এটা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক। এদের অধিকাংশই তার প্রতিক্রিয়ায় গুঞ্জন শুরু করেছিলো। কিন্তু আমার সঙ্গে পুরোপুরি একমত হলো না। আমি তখন এর কিছুই জানতাম না। কিন্তু ১/১১ এর পর আমি বুঝতে পারি যে তারা সবাই কিসের পরিকল্পনা করছিলো। তারা সেই রাতে আমার সামনে তাদের পরিকল্পনা ভুল করে ফাঁস করে দিয়েছিলো।”

তিনি অভিযোগ করেন, আজ আবারো সেই একই লোকগুলো একই অপতৎপরতা পুনরায় চালাচ্ছে। আমাদের এই জিনিসটা থামাতে হবে। আমাদের আর কখনোই সংবিধান থেকে পথভ্রষ্ট হওয়া চলবে না। আমাদের বিরোধীদল একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন বয়কট করে এই সুযোগ তৈরি করেছে। তাদের মূল উদ্দেশ্য হলো নির্বাচনটিকে বিতর্কিত করে আরেকটি “তৃতীয় শক্তিকে” সুযোগ করে দেয়া। তাদের সফল হতে দেবেন না।

দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “এটি বিফল করার এখন একটিই রাস্তা, আর তা হলো ভোট। সাংবিধানিক শুন্যতা তৈরি যেন না হয় তাতে, নিখুঁত না হলেও এই নির্বাচনের কোনো বিকল্প নাই। আমাদের মহান সংবিধানকে সমুন্নত রাখার দায়িত্ব এখন সম্পূর্ণ আপনাদের ওপর। আপনি যদি অসাংবিধানিক উপায়ে ক্ষমতা দখলের কোনো সুযোগ দিতে না চান তবে, ভোটকেন্দ্রে যান এবং ভোট দিন।”

জয় বলেন, “ভোট দিন সেই সরকার গঠনের পক্ষে যারা পচাত্তরের পরের যেকোনো সরকারের তুলনায় দেশকে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। আপনি যদি বাংলাদেশে বিশ্বাস করেন এবং আপনি ব্যক্তিগতভাবে মনে করেন যে আপনি পাঁচ বছর আগের যেকোন সময়ের তুলনায় ভালো আছেন তাহলে বের হয়ে আসুন এবং ভোট দিন। ভোটের মাধ্যমেই আপনাদের জন্য করা আমাদের ভালো কাজগুলোর প্রশংসা করুন। আমরা কথা দিচ্ছি, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি এবং আপনার জীবনমানকে আরো উন্নত করে আমরা আপনার দেয়া ভোটের প্রতিদান দেবো।”

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ