Home / আইন / আক্রান্ত নারী আইনজীবী : সমালোচনার ঝড়
আক্রান্ত নারী আইনজীবী

আক্রান্ত নারী আইনজীবী : সমালোচনার ঝড়

বিএনপি নেতৃত্বাধীন আঠারো দলীয় জোটের ডাকা ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’র প্রথম দিন রবিবার সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গনে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক নারী আইনজীবী৷ তাঁর উপর হামলার ছবি ছড়িয়ে পড়েছে ইন্টারনেটে।
সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে বিএনপি-জামায়াতপন্থি আইনজীবীদের উপর আওয়ামী লীগ কর্মীদের হামলার সময় পুলিশ ছিল কার্যত নিরব দর্শক। টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে প্রচারিত ভিডিও ফুটেজে স্পষ্টতই পুলিশের নিরবতা দেখা গেছে। তখন আওয়ামী লীগ কর্মীদের হামলার শিকার এক নারী আইনজীবীকে রক্ষায় এগিয়ে আসেন সাংবাদিকরা। ইংরেজি দৈনিক নিউ এজ-এর আলোকচিত্র সাংবাদিক সানাউল্লাহ হক নিজের পিঠ পেতে রক্ষা করেন নারী আইনজীবীকে। ফেসবুকে সানাউল্লাহ’র একটি ছবি শেয়ার করে তাঁর সহকর্মী সোহেল মনজুর লিখেছেন, ‘নিউ এজে তোমার সহকর্মী হতে পেরে গর্বিত।’
ক্যানাডাপ্রবাসী সাংবাদিক সওগাত আলী সাগর লিখেছেন, ‘বিশ্বজিৎ বেচারা দর্জির পোলা। তার নৃশংস খুন হওয়া ক্যামেরাবন্দী করতেই ব্যস্ত ছিল সব ক্যামেরাওয়ালা। এই আইনজীবীটির বেলায় অন্তত একজন ‘ক্যামেরাওয়ালা’ মানুষ হয়ে উঠেছিলেন। স্যালুট সানা, আপনাকে স্যালুট। আপনি কেবল ‘ক্যামেরাওয়ালা’ থাকেন নি। মানুষ হয়ে উঠেছিলেন।’
নারী আইনজীবীর উপর হামলাকারীদের শাস্তিও দাবি করেছেন সাগর। তিনি লিখেছেন, ‘আর ওই অমানুষগুলো, যারা একজন মায়ের সম্মান দিতে শিখেনি, ওই দুবৃত্তগুলোকে অবিলম্বে গ্রেফতার করা হউক।’
প্রথম এভারেস্টজয়ী বাংলাদেশি মুসা ইব্রাহিমও ফেসবুকে নারী আইনজীবীকে পেটানোর ছবি শেয়ার করেছেন। তিনি প্রশ্ন করেছেন, ‘একজন নারীকে লাত্থি ও লাঠিপেটা করাকে রাজনৈতিক সহিংসতা বলে চালিয়ে দেবেন? তার চেয়েও বড় এবং জঘন্য ব্যাপার; জাতীয় পতাকায় মোড়ানো লাঠি দিয়ে একজন নারীকে পেটানো। এতে কি জাতীয় পতাকার অবমাননা হয় না?
মুসা মনে করেন, ‘জামাত-শিবির অথবা স্বাধীনতার পক্ষের তকমাধারী– কারো কাছেই জাতীয় পতাকা আজ নিরাপদ নয়…।’ ।ডচভেলে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ