Home / জাতীয় / এই নৌকা নূহ নবীর সেই কিস্তি: শেখ হাসিনা

এই নৌকা নূহ নবীর সেই কিস্তি: শেখ হাসিনা

‘আওয়ামী লীগের এই নৌকা নূহ নবীর সেই কিস্তি যা দিয়ে তিনি মানবজাতিকে উদ্ধার করেছিলেন’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, “নূহ নবী যে নৌকা দিয়ে সমগ্র মানবজাতিকে উদ্ধার করেছিলেন, আওয়ামী লীগও সেই নৌকা দিয়েই আজ বাংলাদেশের মানুষকের উদ্ধারের ব্রত নিয়েছে। দেশের জনগণ ২০০৮ সালে এই নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছে বলেই বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ, চিকিৎসা সেবাসহ জনগণের অন্যান্য মৌলিক অধিকার পূর্ণ হচ্ছে। দেশে-বিদেশে এক কোটিরও বেশি মানুষের কর্মসংস্থান সম্ভব হয়েছে।”

বৃহস্পতিবার ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলায় আওয়ামী লীগের এক নির্বাচনী জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলার মাটিতে একদিন বিএনপি সভানেত্রী খালেদা জিয়ারও বিচার হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমরা ক্ষমতায় এসে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি মোতাবেক জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার করেছি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছি। বিডিআর বিদ্রোহে সেনা কর্মকর্তাদের হত্যারও বিচার করেছি। আর বিএনপি সভানেত্রী এখন আন্দোলনের নামে জ্বালাও-পোড়াও করে যেভাবে নির্বিচারে মানুষ হত্যা করছেন, এই বাংলার মাটিতে একদিন আমরা তারও বিচার করব। মানুষ-গাছপালা-গরু কিছুই তাদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না। এর সবকিছুর দায়দায়িত্ব শুধুমাত্র খালেদা জিয়ার।”

মহাজোট সরকারের আমলে যত উন্নয়ন হয়েছে সেগুলোর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমার নিজের জীবনের চাওয়া-পাওয়ার কিছুই নেই। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট আমি বাবা-মা-ভাইসহ আমার পুরো পরিবারকে হারিয়েছি। তাই আমার হারানোর আর কিছু নেই। মানুষ তার একজন আত্মীয়কে হারালেও তা ভুলতে পারে না, আর আমি সবকিছু হারানোর এই শোক নিয়েও হাসিমুখে কাজ করে যাচ্ছি শুধুমাত্র বাংলার দুঃখী মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের মাধ্যমে তাদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য।”

চিরদিন নৌকাই জয়যুক্ত হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “আমাদের কাজের ফলেই আজ দশ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হয়েছে, ২০২১ সালের মধ্যে আমরা চৌত্রিশ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করব। আমরা কৃষকদের বিনা জামানতে ঋণ দিয়েছি, সার-বীজ-কীটনাশক দিয়েছি, কৃষিতে আধুনিকায়ন করেছি। তাই বাংলাদেশে আজ ঘাটতির বদলে খাদ্য উদ্বৃত্ত থেকে যায়।”

তিনি আরো বলেন, “আমরা যুবকদের ঋণ দিয়েছি। প্রত্যেক ইউনিয়নে ইন্টারনেট সার্ভিস দিয়েছি, তথ্য সেবা খুলেছি, প্রশিক্ষণ দিয়েছি। তাই আমার সন্তানেরা আজ ঘরে বসেই বিদেশ থেকে আয় করতে পারছে। তিন কোটি ছিয়াশি লক্ষ ইন্টারনেট সেবা আর এগারো কোটি মানুষের হাতে মোবাইল দিয়ে দেশকে ডিজিটালিজড করেছি। তাই উন্নয়নের এই গতিধারা অব্যাহত রাখতে আপনারা আবারও আমাদের ভোট দিন।”

পাঁচ ডিসেম্বরের নির্বাচনে জয়লাভ করে আওয়ামী লীগের সরকার দেশকে ডিজিটালাইজড করে উন্নয়নকে আরো তরান্বিত করতে নতুন নতুন প্রজেক্ট হাতে নেবে বলে ঘোষণা দেন তিনি। এসময় ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা থেকে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কাজী জাফরুল্লাহকে ভোট দেয়ার জন্য সেখানকার মানুষের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ