Home / জাতীয় / কবরে লুকিয়ে থেকেও রেহাই পাননি তিনি

কবরে লুকিয়ে থেকেও রেহাই পাননি তিনি

এলাকার কেউ মারা গেলে লাশ বহনের জন্য খাটিয়া কিনে দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু মৃত্যুর পর তাঁকে বহনের জন্যই সেই খাটিয়া পাওয়া গেল না। জানাজায়ও অংশ নিয়েছে মাত্র পাঁচ-ছয়জন মানুষ। এমনই ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে হত্যাকারী বলে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা।
নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতা আজহারুল ইসলামের শোকবিহ্বল পরিবারের কাছে গতকাল শনিবার জানা গেল এ কথা।
আজহারের পরিবার জানায়, জামায়াত-শিবিরের ভয়ে আত্মীয়স্বজন এবং পাড়া-প্রতিবেশীরা তাঁর জানাজায় অংশ নেওয়ার সাহস পর্যন্ত পাননি। মাত্র পাঁচ-ছয়জন মানুষ জানাজার নামাজ পড়েন।
জামায়াতে ইসলামীর নেতা কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের খবর প্রচারিত হওয়ার পরপরই আজহারুলের গ্রাম যুগীবাড়ী বাজারে তাণ্ডব শুরু করে জামায়াত-শিবিরের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা।
আজহারুলের স্ত্রী মোসাম্মৎ শামসুন্নাহার বলেন, ১২ ডিসেম্বর রাত ১২টার পর আজহার খবর পান বাজারে তাঁর দোকান ভাঙচুর শেষে বাড়ির দিকে আসছে হামলাকারীরা। তিনি পারিবারিক কবরস্থানের একটি পুরোনো কবরের গর্তে লুকান। সেখান থেকে ধরে এনে পিটিয়ে হত্যা করা হয় তাঁকে।
আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা বলেন, এখনো আতঙ্কে রয়েছেন তাঁরা। যৌথ বাহিনীর টহল দল চলে গেলেই চলে চোরাগোপ্তা হামলা।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ