Home / জাতীয় / নৌবাহিনীতে সংযুক্ত হলো ৩৭৮ ফুট দীর্ঘ শক্তিশালী নৌযান বিএনএস সমুদ্র জয়

নৌবাহিনীতে সংযুক্ত হলো ৩৭৮ ফুট দীর্ঘ শক্তিশালী নৌযান বিএনএস সমুদ্র জয়

মার্কিন কোস্টগার্ড কাটার জারভিস নামে পরিচিত ৩৭৮ ফুট দীর্ঘ শক্তিশালী নৌযান বাংলাদেশ নৌবাহিনীর নৌবহরে বিএনএস সমুদ্রজয় নামে যুক্ত হয়েছে। নৌযানটি গতকাল চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছায়। জাহাজটি চট্টগ্রাম পতেঙ্গা নৌঘাঁটিতে পৌঁছলে নৌবাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল এম ফরিদ হাবিব যুদ্ধজাহাজ সমুদ্রজয়কে স্বাগত জানান। বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনাসহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
বিএনএস সমুদ্রজয় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সবচেয়ে বৃহত্তম নৌযান হিসেবে যুক্ত হলো। জাহাজটি যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে। জানা যায়, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত ৩ হাজার ৩ শত ১৩ টন ওজনের জাহাজটি ঘন্টায় ২৯ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলতে সক্ষম। জাহাজটিতে হেলিকপ্টার অবতরণের ব্যবস্থা রয়েছে। শক্তিশালী এই নৌযানটি ১৯৭২ সালে হাওয়াইতে মোতায়েন ছিলো।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এক্সেস ডিফেন্স আর্টিকেলস্ কর্মসূচির আওতায় গত ২১ মে’ এই নৌযান বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রশিক্ষণ ও নতুন উপকরণ স্থাপনের নিবিড় কর্মসূচির পর ১৬৭ জন নাবিকবিশিষ্ট এই যানটি ছয় সপ্তাহে প্রশান্ত মহাসাগর সফলতার সঙ্গে পাড়ি দিয়েছে। ফিলিপাইনে দুর্যোগে সাড়া দিতে গিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই জাহাজটি এই যাত্রায় ৪০ টন পরিমাণ ত্রাণসামগ্রী নিয়ে ৩০ নভেম্বর ম্যানিলায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়। বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে জাতির স্বার্থ এগিয়ে নিতে ও বঙ্গোপসাগরে বৈশ্বিক নিরাপত্তা প্রদানে জাহাজটি নৌবাহিনীকে কয়েক দশকব্যাপী নির্ভরযোগ্য সেবা প্রদান করতে পারবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।
এছাড়া সমুদ্রসীমায় নিরাপত্তা গড়ে তুলতে, সমুদ্রপথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের নির্ভরশীল অংশীদার এবং যৌথ অংশীদারিত্বের বিভিন্ন সাফল্যের কথাও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। – See more at: http://www.dailyinqilab.com/2013/12/14/148677.php#sthash.0v5S9K59.dpufমার্কিন কোস্টগার্ড কাটার জারভিস নামে পরিচিত ৩৭৮ ফুট দীর্ঘ শক্তিশালী নৌযান বাংলাদেশ নৌবাহিনীর নৌবহরে বিএনএস সমুদ্রজয় নামে যুক্ত হয়েছে। নৌযানটি গতকাল চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছায়। জাহাজটি চট্টগ্রাম পতেঙ্গা নৌঘাঁটিতে পৌঁছলে নৌবাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল এম ফরিদ হাবিব যুদ্ধজাহাজ সমুদ্রজয়কে স্বাগত জানান। বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনাসহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
বিএনএস সমুদ্রজয় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সবচেয়ে বৃহত্তম নৌযান হিসেবে যুক্ত হলো। জাহাজটি যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে। জানা যায়, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত ৩ হাজার ৩ শত ১৩ টন ওজনের জাহাজটি ঘন্টায় ২৯ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলতে সক্ষম। জাহাজটিতে হেলিকপ্টার অবতরণের ব্যবস্থা রয়েছে। শক্তিশালী এই নৌযানটি ১৯৭২ সালে হাওয়াইতে মোতায়েন ছিলো।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এক্সেস ডিফেন্স আর্টিকেলস্ কর্মসূচির আওতায় গত ২১ মে’ এই নৌযান বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রশিক্ষণ ও নতুন উপকরণ স্থাপনের নিবিড় কর্মসূচির পর ১৬৭ জন নাবিকবিশিষ্ট এই যানটি ছয় সপ্তাহে প্রশান্ত মহাসাগর সফলতার সঙ্গে পাড়ি দিয়েছে। ফিলিপাইনে দুর্যোগে সাড়া দিতে গিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই জাহাজটি এই যাত্রায় ৪০ টন পরিমাণ ত্রাণসামগ্রী নিয়ে ৩০ নভেম্বর ম্যানিলায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়। বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে জাতির স্বার্থ এগিয়ে নিতে ও বঙ্গোপসাগরে বৈশ্বিক নিরাপত্তা প্রদানে জাহাজটি নৌবাহিনীকে কয়েক দশকব্যাপী নির্ভরযোগ্য সেবা প্রদান করতে পারবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।
এছাড়া সমুদ্রসীমায় নিরাপত্তা গড়ে তুলতে, সমুদ্রপথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের নির্ভরশীল অংশীদার এবং যৌথ অংশীদারিত্বের বিভিন্ন সাফল্যের কথাও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ