Home / খেলা / নিরাপত্তা ঝুঁকিতে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন

নিরাপত্তা ঝুঁকিতে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন

দেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতার মাশুল গুনছে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষজন। তবে রাজনীতির এই কড়াল গ্রাস থেকে মুক্তি পাচ্ছে না দেশের ক্রীড়াঙ্গনও। বাতিল হয়ে যাচ্ছে একের পর এক উদ্যোগ। সিডিউল বিপর্যয়ের শঙ্কাও করছে বিশ্লেষকরা।

এরই মধ্যে চলমান ফেডারেশন কাপ ফুটবল, ওয়েস্ট ইন্ডিজ অ-১৯ বাংলাদেশ সফর বাতিল থেকে শুরু করে সব ধরণের খেলায় বিরুপ প্রভাব বিস্তার করছে। প্রভাবশালী গণমাধ্যম বিবিসি বাংলাও ফলাও করে ওয়েষ্ট ইন্ডিজের সফর বাতিলের সংবাদ প্রচার করেছে। যা দেশের সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হিসেবে বিবেচিত ক্রীড়াঙ্গনের জন্য দু:সংবাদ বয়ে আনছে বৈকি।

সর্বশেষ নিরাপত্তার কারনে ফিরে যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। বাংলাদেশে চলমান একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সিরিজ থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে তারা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে দলের নিরাপত্তা এবং সুরক্ষার জন্য তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

শনিবার চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ হোটেলের সামনে একটি বোমা বিস্ফোরিত হবার কারনে ওই হোটেলে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল নিরাপত্তার কারনে রোববারের নির্ধারিত দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচটিতে যোগ দেয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। পরে ম্যাচটি সোমবার সকালে পুন-নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু ওয়েস্টে ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি সোমবারের এই ম্যাচটিও খেলতে নামেনি দলটি।

জানুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা রয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের। আর ২০১৪ টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আয়োজকও বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে বেশ বড় খেলার সূচি এখন বাংলাদেশে সামনে।

চলমান ফেডারেশন কাপ ফুটবলে বেশ কয়েক বার নির্ধরিত খেলা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে হরতাল, অবরোধের কারণে। সেমি ফাইনালের ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হয়েছে অনেক কাঠ-খড় পুড়িয়ে। ফেডারেশনের কর্তারা এখন শুক্রবারের ফাইনাল খেলা ভালো ভাবে শেষ করতে পারলেই এ যাত্রায় রক্ষা হবে।

আর আগামী বছরের শুরুতে ফুটবল ফেডারেশন আয়োজন করতে যাচ্ছে স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্ট। সারা দেশ ব্যাপি চলবে এ খেলার সময় রাজনৈতিক পরিবেশ শান্ত না হলে, কোমলমতী শিশুদের নিয়ে আয়োজিত এই টুর্নামেন্ট আলোর মুখ দেখবে বলে আশা করা যায় না।

আগামী ১৭ ডিসেম্বর দেশে প্রথম বারের মতো আসছে ফুটবল বিশ্বকাপ ট্রফি। আর এই ট্রফি আসাকে কেন্দ্র করে বেশ উৎকন্ঠায় রয়েছে আয়োজকরা। কারণ ১৭ ডিসেম্বর যদি হরতার বা অবরোধ ডাক দেয় কোন রাজনৈতিক সংগঠন, তাহলে নিরাপত্তার অযুহাতে সলিল সমাধি ঘটতে পারে বিশ্বকাপ ফুটবল এক নজরে দেখার স্বপ্নের।

এবাবে চলতে থাকলে ঝুকিপূর্ন রাষ্ট্র হিসেবে বিবেচনা করে অনেক দলই ওয়েস্ট ইন্ডিজের পদাঙ্ক অনুসরণ করবে। রাজনৈতিক মাঠের উত্তাপ না কমলে খেলার মাঠের উত্তাপও কমবে না বলে মনে করেন সবাই।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ