Home / আইন / তারেক রহমানের বিরুদ্ধে পরোয়ানা প্রত্যাহার করা হচ্ছে

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে পরোয়ানা প্রত্যাহার করা হচ্ছে

অর্থ পাচারের অভিযোগ থেকে খালাস পাওয়ার পর এই মামলায় তারেক রহমানকে গ্রেপ্তারে ইন্টারপোলের মাধ্যমে পরোয়ানা জারির যে আদেশ ইতোপূর্বে হয়েছিল, তাও প্রত্যাহার করা হচ্ছে।

এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা প্রত্যাহারের উদ্যোগ নিতে সোমবার ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৩ থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আদেশ গেছে বলে ওই আদালতের পেশকার আরিফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “তারেক রহমানের বিরুদ্ধে একটি পরোয়ানা ফেরতের আদেশ পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকের নিকট পাঠানো হয়েছে।”

একইসঙ্গে পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-কমিশনারের মাধ্যমে বনানী ও গুলশান থানায় (কূটনীতিক পাড়া) এর অনুলিপি পাঠানো হয়েছে বলে জানান পেশকার।

এই আদালতের বিচারক মোতাহার হোসেন গত ১৭ নভেম্বর দেয়া রায়ে সিঙ্গাপুরে অর্থ পাচারের মামলায় খালেদা জিয়ার ছেলে তারেককে খালাস দেন।

রায়ের পর ছুটিতে ছিলেন বিচারক মোতাহার। ছুটি শেষে সোমবার কাজে যোগ দিয়েই পরোয়ানা ফেরত আনার আদেশ দেন তিনি।

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক পাঁচ বছর ধরে যুক্তরাজ্যে রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে ডজনের বেশি মামলা রয়েছে।

নির্দলীয় সরকারের দাবিতে বিএনপির অবরোধ-হরতালের মধ্যে অর্থপাচার মামলায় তারেক খালাস পান। তবে একই মামলার আসামি গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের সাজা হয়েছে।
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় গ্রেপ্তার হওয়ার পর তারেকের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা হয়। ওই সব মামলায় জামিন নিয়ে তিনি যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান। স্ত্রী-সন্তানও তার সঙ্গে রয়েছে।

খালেদার ছেলের অন্যতম আইনজীবী জয়নাল আবেদীন মেজবাহ এর আগে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তারেকের বিরুদ্ধে ১৬টি মামলা ছিল, সাধারণ ডায়েরি ছিল একটি।

এর মধ্যে চারটি মামলা বিচারাধীন। এগুলো হচ্ছে- জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলা, ২১ অগাস্ট গ্রেনেড হামলার দুই মামলা এবং সোনালী ব্যাংকের দায়ের করা ডান্ডি ডাইয়িংয়ের ঋণ খেলাপির মামলা।

সিঙ্গাপুরে অর্থ পাচারেরটিসহ দুটি মামলা এবং একমাত্র সাধারণ ডায়েরির অভিযোগ থেকে তারেক খালাস পেয়েছেন। বাকি ১০টি মামলার কার্যক্রম হাই কোর্টের আদেশে স্থগিত রয়েছে বলে মেজবাহ জানান।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ