Home / জাতীয় / ৬০ বছর বৃদ্ধের হাতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

৬০ বছর বৃদ্ধের হাতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

childrape7_23142দামুড়হুদার উজিরপুর গ্রামের এক ভিক্ষুক দম্পত্তির ৭ বছর বয়সি শিশু কন্যাকে ফুসলিয়ে লম্পট বৃদ্ধ মফিজ উদ্দিন (৬০) মাঠে নিয়ে উপর্যপুরি ধর্ষণ করেছে।

ধর্ষিত শিশুটির অবস্থা আশঙ্কা জনক। সে অনেকটা রক্ত শূন্যতায় ভুগছে।

এবিষয়ে বৃহস্পতিবার ধর্ষিতার নানী বাদী হয়ে লম্পট বৃদ্ধ মফিজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ গতকাল বৃহস্পতিবার ধষিত শিশু কন্যাটির ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে। এবং ধর্ষক মফিজকে আটক করেছে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দামুড়হুদার সদর ইউনিয়নের উজিরপুর গ্রামের এক ভিক্ষুক দম্পত্তির ৭ বছর বয়সি শিশু কন্যা গত ২৯ নভেম্বর শুক্রবার দুপুর একটার দিকে গ্রামের নাতাশা মাঠে ছাগল চরাতে যায়। এসময় ওই মাঠে একই গ্রামের মৃত আরজুল্লা তরফদারের ছেলে লম্পট মফিজ তাকে একা পেয়ে অর্থের লোভ দেখিয়ে ফুসলিয়ে একটি ঝোপের আড়ালে নিয়ে যায়। সেখানে সে শিশুটিকে উপর্যপুরী ধর্ষণ করে। এসময় ওই মাঠে কেউ না থাকায় শিশুটির চিৎকার কেউ এগিয়ে আসেনি। ফলে শিশুকন্যাটি রক্তাক্ত হয়ে মারাত্মক ভাবে আহত হয়। লম্পট ধর্ষক যাওয়ার সময় শিশুটিকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে বলে এই ঘটনা কাউকে বললে তোকে মেরে ফেলব।

ঘটনার দিন শিশুকণ্যাটির বাড়ির সকলে আতœীয় বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ায় সে ভয়ে কাউকে কিছু জানায়নি। পর দিন প্রতিবেশীরা শিশুটির অবস্থা খারাপ দেখে তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে বিস্তারিত তাদেরকে জানায়।

বিষয়টি ধর্ষক মফিজ জানতে পেরে বিভিন্ন ভাবে ধামাচাপা দেবার চেষ্টা করে।

পরবর্তীতে ভিকটিমের পক্ষ থেকে দামুড়হুদা মডেল থানায় এসে অভিযুক্ত লম্পট মফিজের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে।

ধষিত শিশুকন্যাটির শারিরিক অবস্থা দেখে সাথে সাথে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আহসান হাবিব ধর্ষক মফিজকে আটক করে ।

এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই ইমদাদ জানান, ধর্ষিত শিশুকন্যাটির ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠায়। বিকেলে ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ