Home / আন্তর্জাতিক / নাখোশ, তবে কাজ অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

নাখোশ, তবে কাজ অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এখনো নাখোশ থাকলেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন সরকারের সঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখবে বলেও ঘোষনা দিয়েছে দেশটির সরকার।

নিয়মিত ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র মেরি হার্ফ গতকাল সোমবার এ কথা জানান।

এসময় এক প্রশ্নের জবাবে মেরি হার্ফ বলেন, ‘নির্বাচিত সরকারের সঙ্গে আমরা অবশ্যই কাজ করব। কিন্তু আমরা ইতিমধ্যে নির্বাচন নিয়ে আমাদের হতাশার কথা স্পষ্ট করেছি।’

তিনি বলেন, ‘নতুন সংসদের প্রায় অধিকাংশ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়নি বা কেবল প্রতীকী প্রতিদ্বন্দ্বী থাকায় এই নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণের ইচ্ছার বিশ্বাসযোগ্য প্রতিফলন হয়নি বলে আমরা মনে করি। এ বিষয়ে তাদের কাছে আমরা আমাদের উদ্বেগ আরও পরিষ্কার করব।’

শেখ হাসিনা সরকারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কাজ অব্যাহত রাখবে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে মেরি হার্ফ বলেন, ‘আমরা কাজ করে যাব, অবশ্যই করব। কিন্তু একই সঙ্গে নির্বাচনের বিষয়ে আমাদের উদ্বেগের কথাও পরিষ্কারভাবে তুলে ধরব।’

এদিকে কয়েকদিন আগে যুক্তরাজ্য সরকারও নতুন সরকার ও রাজনৈতিকদলগুলোকে জনস্বার্থে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশের সাথে তাদের সাহায্য সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেয়।

উল্লেখ্য, এর আগে বাংলাদেশে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন চরম হতাশা প্রকাশ করে।

এদিকে তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানাতে ১২ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৬টায় তাঁকে টেলিফোন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

এসময় মনমোহন আশা প্রকাশ করেন, আগের মতোই দুদেশের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন এ সরকার দু’দেশের মধ্যে যে দ্বিপক্ষীয় সমস্যাগুলো রয়েছে, অবিলম্বে সেটা সমাধানের সহজ পথ বের করবে।

অপরদিকে ১৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিইয়াং। এক চিঠির মাধ্যমে তিনি এ অভিনন্দন জানান। এ অভিনন্দন বার্তায় চীনা প্রধানমন্ত্রী বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশে সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ায় চীন সরকার, জনগণ এবং আমার পক্ষ থেকে আপনাকে উষ্ণ অভিনন্দন এবং শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

দু’দেশের মধ্যে সুসম্পর্ক আরো জোরদার হওয়ার আশা প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ-চীন ঘনিষ্ঠ এবং বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরো বেড়েছে। আমি আপনার প্রতি এ সহযোগিতার হাত বাড়াতে চাই যাতে বাংলাদেশ-চীন ব্যাপক এবং সমবায় অংশীদারিত্বে ধারাবাহিকভাবে একটি নতুন জায়গায় পৌঁছাতে পারে।

একইভাবে রাশিয়া এবং ভিয়েতনাম সরকারও বাংলাদেশের নতুন সরকারকে স্বাগত জানিয়ে পারস্পরিক সম্পর্ক আরো জোরদারের আশা প্রকাশ করেছে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ