Home / খেলা / দেশে শান্তি ফেরানোর আহ্বান মুশফিকের
দেশে শান্তি ফেরানোর আহ্বান মুশফিকের

দেশে শান্তি ফেরানোর আহ্বান মুশফিকের

অবরোধ-হরতালে থমকে গেছে দেশ। এমন পরিস্থিতে সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে শান্তি ফেরানোর আহ্বান ‍জানালেন জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। মঙ্গলবার অনুশীলন শেষে সার্বিক দিক নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বললেন তিনি।

১২ জানুয়ারি থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল)। চারটি দলের এই প্রতিযোগিতা শ্রীলঙ্কা সিরিজে কাজে দেবে মনে করেন মুশফিক,‘বিসিএল আমাদের অবশ্যই সহায়ক হবে। এখানে সেরা চারটি দল খেলবে। খেলার মানও ভালো থাকে যেটা কাজে দেবে। দলের সকল দিক নিয়েই কাজ করতে হবে। বিশেষ করে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ও পেস বোলারদের নিয়ে আমাদের কাজ আছে। প্রথম দুটি ম্যাচ সবাই খেলবে। তারপর আমরা অনুশীলনে নেমে যাব।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে জেতা সম্ভব মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক,‘আমরা বিশ্বাস করি ভালো খেলতে পারলে ওদের সঙ্গে জেতা যাবে। শেষবার আমরা তাদের ওখানে গিয়ে খেলেছি। ভয় খুব একটা বেশি নেই। কিন্তু এটাও ঠিক যে আমাদের চেয়ে তাদের রেকর্ড ‍অনেক ভালো।’

ব্যাটিং অর্ডারে ওপেনিংয়ে গুরুত্ব দিয়ে মুশফিক বলেন,‘কাউকে পরিবর্তন নিয়ে চিন্তিত নই। যেই আসুক সেখানে ভালো কেউ আসতে হবে। ওপেনাররা ভালো করলে মিডল অর্ডারে যারা আছে তারাও ভালো করতে পারবে।’

বিজয় দিবস কাপ চলাকালে চোট নিয়ে মাঠের বাইরে চলে যান মুশফিক। দু’সপ্তাহ বিশ্রামে থ‍াকার কথা থাকলেও আগে আগেই অনুশীলনে নেমে গেছেন তিনি,‘ব্যথা পেয়েছিলাম ম্যাচ চলাকালে। আল্লাহর রহমতে আমি খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হতে পেরেছি। চিকিৎসাটা খুব ভালো হয়েছিল। দেবাশীষ স্যারের পরমর্শ অনুযায়ী কাজ করেছি। আমার দু’সপ্তাহ বিশ্রামে থাকার কথা ছিল। কিন্তু আমি ১০ দিনের মধ্যেই সুস্থ হতে পেরেছি। চারদিন ধরে ব্যাটিং শুরু করেছি। আমার জন্য বিশ্রামের দরকার ছিল। তবে এভাবে চাইনি। যাই হোক এখন আবার অনুশীলনে ফিরেছি।’

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিও ভাবাচ্ছে মুশফিককে। জাতীয় দলের খেলোয়াড় হিসেবে শান্তি ও স্বস্তি ফেরানোর আহ্বান জানালেন তিনি,‘আমরা যারা ক্রিকেটার তারা ক্রিকেট না খেললেও অন্তত বাসায় তিন বেলা ভাত খেতে পারি। কিন্তু যারা দিন আনে দিন খায় সাধারণ মানুষ, তাদের দিক থেকে আমি আহ্বান জানাতে চাই যে অন্তত তাদের কথা চিন্তা করে দেশে শান্তি ফিরে আসুক। তারা যেন বাঁচতে পারে। আমরা যদি ক্রিকেট নাও খেলি তাও বাসায় বসে থাকতে পারব। কিন্তু সাধারণ মানুষের অবস্থা কী হবে। মানুষ সবাই কষ্টে আছে। বাংলাদেশের বদনামটা যেন বিশ্বে না ছড়ায়। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শান্তি ফিরে আসুক।’

গত শনিবার এশিয়া কাপের আয়োজক হিসেবে বাংলাদেশকেই বহাল রেখেছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল। শোনা যাচ্ছে পাকিস্তান নাও আসতে পারে এই টুর্নামেন্টে। এনিয়ে মুশফিক বলেন,‘এশিয়া কাপ বাংলাদেশেই হচ্ছে এটা আমদের জন্য খুব ভালো সংবাদ। আশা করব শেষবার আমরা যেভাবে খেলেছি সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য। আমরা অন্তত বাংলাদেশকে হাসির কান্নাটা দিতে পারি, দু:খের কান্না নয়। আর দেশে এমন কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি যে খেলা হবে না। আমরা সবাইকে আমন্ত্রণ জানাই, যদি কেউ না আসে তাহলে আমাদের কিছু করার নেই।’

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ