Home / জাতীয় / বিএনপি-জামায়াতকে আস্থায় নিচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্র!
বিএনপি-জামায়াতকে আস্থায় নিচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্র!

বিএনপি-জামায়াতকে আস্থায় নিচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্র!

সন্ত্রাসবাদ প্রশ্নে বিএনপি-জামায়াত জোটকে পুরোপুরি আস্থায় নিতে পারছেনা যুক্তরাষ্ট্র সরকার। এ নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে দূতিয়ালী চালিয়েও ফল পাচ্ছে না তারা। সূত্র জানিয়েছে, যুুক্তরাষ্ট্রকে বোঝাতে শক্তভাবে বিএনপির পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশের একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিত্ব। যুক্তরাষ্ট্রেও রয়েছে যার বিশাল গ্রহণযোগ্যতা। সেই সূত্র ধরেই চলছে দূতিয়ালী। তবে এতকিছুর পরেও যুক্তরাষ্ট্র নিশ্চিত হতে পারছেনা বিএনপি-জামায়াত নেতৃতাধীন জোট ক্ষমতায় গেলে বাংলাদেশ সন্ত্রাসমুক্ত হতে পারবে। সংশ্লিষ্ট একটি সুত্র বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

দায়িত্বশীল সুত্রটি জানিয়েছে, আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি বিরাগভাজন এবং বিএনপি’র প্রতি সহানুভ’তিশীল ওই ব্যক্তিত্বের দূতিয়ালীতে বিএনপি যুুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের কাছে প্রতিশ্রুতি দেয়, দলটি ক্ষমতায় গেলে বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের উত্থান হবেনা এবং বিএনপি সরকারে জামায়াতে ইসলামী’র কোন আধিপত্য বিস্তারের সুযোগ থাকবেনা।

এছাড়াও বিএনপি’র শাসনে বাংলাদেশে যেকোন ধরনের ধর্মীয় উগ্রবাদ ও সহিংসতা পরিহার করা হবে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে বোঝানোর চেষ্টা চলছে।

সূত্র জানিয়েছে, এসব দূতিয়ালীতেও বিএনপিকে পুরোপুরি আস্থায় নিতে পারছে না যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট। প্রশাসনের একটি বড় অংশ এতে সম্পূর্ণভাবে আশ্বস্ত হতে পারছে না। তবে বিষয়টিকে একেবারে উড়িয়েও দিচ্ছে না তারা।

সংশ্লিষ্ট সুত্রটির মতে, বিএনপির পক্ষ থেকে এমন আশ্বাস পাওয়ার পরই ঢাকায় নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ড্যান মজিনা কিছুটা সক্রিয় হন। শান্তিপূর্ণ সমাধানের পথ নিশ্চিত করতে তিনি একাধিক বৈঠকও করেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার বাসভবনে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের উপস্থিতির পেছনেও বিএনপি’র ঐ প্রতিশ্রুতির ভুমিকা রয়েছে বলেও সুত্রটি জানিয়েছে।

তবে অসমর্থিত সূত্রগুলো বলছে, ড্যান মজিনা এবং ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসনের সাম্প্রতিক কূটনীতিক তৎপরতা ১০ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে নয় বরং একাদশ সংসদ নির্বাচনটি কিভাবে, কত দ্রুত হতে পারে সে বিষয়ে।

এদিকে, কূটনৈতিক অপর একটি সুত্র জানিয়েছে, হিলারি ক্লিনটনের বিদায়ের পর মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরে জন কেরির প্রশাসন শুরু হলে বাংলাদেশের ওই বিশিষ্ট ব্যক্তির গুরুত্ব আগের চেয়ে কিছুটা কমে আসছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক মহলে তার গ্রহণযোগ্যতা এখনো অটুট।

রাজনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, আওয়ামী লীগ সরকারের হাতে বিভিন্নভাবে নাজেহাল হওয়া ওই আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব তার অপমানের প্রতিশোধ নিতেই বিএনপি’র ‘পক্ষ’ বেছে নিয়েছেন। প্রতিশোধ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের ওপর তার ক্ষোভের সমাপ্তি নেই, বলেই মন্তব্য দায়িত্বশীল সূত্রটির।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ