Home / জাতীয় / অসহায় দুই বৃদ্ধের প্রশ্ন ‘ভোট দিয়ে কি হয়?’

অসহায় দুই বৃদ্ধের প্রশ্ন ‘ভোট দিয়ে কি হয়?’

10thnirbachonশুক্রবার সকাল ১০টা। শীতের ঠান্ডা হাওয়া। হঠাৎ চোখ পড়লো রাস্তার পাশে ৭০ থেকে ৭২ বছরের এক বৃদ্ধের দিকে। তিনি বসে রোদ পোহাচ্ছেন। তাঁর কাছে গিয়ে বসলাম। নাম মোঃ ইউনুস আলী, গ্রামের বাড়ি বরিশাল। প্রায় ১২ বৎসর ধরে থাকেন ঢাকায়। রায়ের বাজারের বেড়ি বাধ এলাকায় কাছে ‘ছয় তলা গলি’ তাঁর বর্তমান ঠিকানা।

ইউনুস আলীর ৩ সদস‌্যের সংসারে উপার্জন করার মতো তেমন কেউ নেই। তাই এই বয়সেও তাকেই সংসারের ব্যায় মেটাতে হয়। বাধ্য হয়েই রাস্তার পাশে বসে রিক্সাভ্যানের মেরামতি করেন। প্রতিদিন গড়ে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা রোজগার হয়।

পৌষ মাসের এই শীতে কথা বলার ফাঁকে মাঝে মাঝে কেঁপে ওঠছেন। জানালেন, শীত বড় কষ্টের। শীত নিবারনের জন্য নেই যথেষ্ট কাপড়। রাতে বেলায় কষ্টটা আরও বেড়ে যায়। দেখেই বোঝা যায় এই বয়সে আর কতই শীত সহ্য করা যায়।

এটা সেটা প্রশ্নের মাঝে দেশের কথা উঠতেই ক্ষোভ ঝরে উঠলো তাঁর, ‘সরকার তো আমাদের দিকে তাকায় না। তারা শুধু থাকেন তাদের নিয়ে। আমাদের নিয়ে যদি একটু ভাবতো তাহলে আমাদের কষ্টটা একটু কমতো।’

আর মাত্র একদিন পরেই শুরু হচ্ছে দেশের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এ নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ভোট বরিশালে, আর ওখানে তো এবার ভোটাভোটি নেই। ওখানে ভোট ছাড়াই পাস। তাছাড়া আমাদের কথা কে শোনে। আমাদের ভোটে কি হয় ?

রায়ের বাজার এলাকায় একই রাস্তা ধরে আরও একটু এগিয়ে গেলে দেখা মিলে হাকিম বেপারী নামে আরও এক ৭০ বছরের বৃদ্ধর সাথে। তিনিও বয়সের ভারে আর কাজ করতে পারেন না। পাঁচ সদস্যের সংসারটি চালানোর ভার এক মাত্র ছেলের ঘাড়ে।

ভালো করে হাকিম বেপারীর দিকে একটু তাকিয়ে দেখলেই সহজেই বুঝা যায় দারিদ্রের ছাপ। পৌষের এই শীতে একমাত্র রোদই তাঁর সম্বল কম্বল। কথায় কথায় তিনি বলেন, ‘ধনী মানুষগুলা যদি গরিবদের একটু সাহায্য করতো তাহলে ভালো হত। তাছাড়া সরকারও তো পারে আমাগোর একটু সাহায্য করতে।’

সরকারের কথা বলতে গিয়েই চলে আসে বর্তমান রাজনীতির কথা। রাজনীতি নিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে না গিয়ে ভুল করেছে। কারণ হিসেবে তিনি যা বললেন তা লঘু স্বরের কারনে আর শোনা গেলো না।

রাজনীতির প্রসঙ্গ তুলতেই পিছলি কাটেন হাকিম বেপারী। ভোটের কথা তুলতেই তিনি উল্টো প্রশ্ন করেন, ভোট দিয়ে কি হয় গরীবের ?

অসহায় বৃদ্ধ ইউনুস আলী আর হাকিম বেপারীর একই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারিনি।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ