Home / লাইফস্টাইল / দিন দিন মুটিয়ে যাচ্ছেন? জেনে নিন প্রতিরোধের ৮টি উপায়

দিন দিন মুটিয়ে যাচ্ছেন? জেনে নিন প্রতিরোধের ৮টি উপায়

দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে মানুষের মুটিয়ে যাওয়ার প্রবণতা। এর ফলে প্রতিনিয়ত কমে যাচ্ছে মানুষের কর্মক্ষমতা। একজন মানুষ প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার সময়ের মধ্য একদিনে মোটা হয় না। জীবনযাপনের ধরন এবং খাদ্যাভাস তার মোটা হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। দেহের চাহিদার অতিরিক্ত খাবার খাওয়া বিশেষ করে ফ্যাট, ক্যালসিয়া ও ক্যালরিযুক্ত খাবার বেশি খেলে ওজন বৃদ্ধি পায়। অতিরিক্ত মানসিক চাপ, অতিরিক্ত ঘুম, স্টেরয়েড এবং অন্যান্য নানা ধরনের ওষুধ গ্রহণের ফলেও বাড়তে পারে দেহের ওজন। মুটিয়ে যাওয়া মানুষেরা শিকার হন নানান রকম বিড়ম্বনার। পাশাপাশি বাড়তে থাকে নানা রকম অসুখ-বিসুখে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা। মুটিয়ে যাওয়া থেকে উত্তরণেরও নানা উপায়। জেনে নিন এমন কিছু উপায় –

ডায়েট চার্ট :
আপনি যদি শারীরিক কোনো কাজ না করেন তাহলে দিনে ১৫০০ কিলোক্যালরির বেশি শক্তিসম্পন্ন খাদ্য গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। খাদ্যের শক্তি পরিমাপ করা খুবই সহজ। যেমন ১ গ্রাম চাল বা আটায় রয়েছে ৪ কিলোক্যালরি, ১ গ্রাম আমিষে (মাছ, মাংস) রয়েছে ৪ কিলোক্যালরি, ১ গ্রাম চর্বিজাতীয় খাদ্যে রয়েছে ৯ কিলোক্যালরি। দেখা যাচ্ছে চর্বিজাতীয় খাবার সবচেয়ে বেশি শক্তির যোগান দেয়। মনে রাখবেন সব ধরনের খাবারই শরীরের জন্য প্রয়োজনীয়। তাই একটা সুষম খাবারের তালিকা বা ডায়েট চার্ট নিজের জন্য তৈরি করে নিন।

খাদ্যাভাসে পরিবর্তন আনুন :
প্রতিদিন একই সময়ে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। তাড়াহুড়ো করে খাবার খাবেন না। খাবার ধীরে ধীরে চিবিয়ে খান। খাওয়ার এক ঘণ্টা পরে পানি পান করবেন। কোমল পানীয় একদম খাবেন না। টিভি দেখতে চিপস বা অন্য কোনো খাবার খাবেন না।

অতিরিক্ত খাবেন না :
খাবার যখন খুব মজাদার হয়, তখন আমরা অতিরিক্ত খেয়ে ফেলি। আত্মসম্বরণের চেষ্টা করুন। কারণ আপনি যত বেশি খাবেন তত বেশি ক্যালরি গ্রহণ করবেন। আর যত বেশি ক্যালরি গ্রহণ করবেন তা যদি খরচ না হয়, তবে তা শরীরে চর্বি আকারে জমা হবে।

নিয়মিত ব্যায়াম করুন :
ওজন কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হলো কম ক্যালরিযুক্ত খাবার খাওয়া এবং প্রচুর শারীরিক পরিশ্রম করা বা ব্যায়াম করা। প্রতিদিন যে পরিমাণ ক্যালরি আপনি গ্রহণ করেন তার চেয়ে বেশি যদি পরিশ্রমের মাধ্যমে ব্যয় করতে পারেন তাহলে আপনি নিশ্চিতভাবে ওজন কমাতে সক্ষম হবেন। সাঁতার কাটা একটি ভালো ব্যায়াম। নিয়মিত সাইক্লিং ও দ্রুত হাঁটা খুবই ভালো।

কায়িক পরিশ্রম করুন :
বসে বসে টিভি দেখা, ইনডোর গেম খেলা, আড্ডা ইত্যাদি কায়িক পরিশ্রমবিহীন বিনোদন কমিয়ে কায়িক পরিশ্রমযুক্ত বিনোদন, খেলাধুলা করুন। এসবের মধ্যে থাকতে পারে বাগান করা, সাঁতার কাটা, বল খেলা, উদ্যানে ভ্রমণ, সাইকেল চালানো ইত্যাদি।

বেশি করে আঁশযুক্ত খাবার গ্রহণ করুন :
আঁশযুক্ত খাবার ক্ষুদ্রান্ত্র থেকে রক্তস্রোতে চর্বি ও রক্তচর্বি শোষণ রোধ করে। সব খাবারেই কম-বেশি আঁশ রয়েছে। বিশেষ করে টাটকা শাকসবজি, ফলমূল ও শস্যজাতীয় খাবারে। এসব খাবার কোলেস্টেরল কমাতে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

যথেষ্ট পানি পান করুন :
প্রতিদিন কমপক্ষে ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন। হারবাল চা, শরবত, ডাবের পানি পান করুন। পানীয় আপনার বাড়তি চর্বি কাটাতে সাহায্য করবে এবং বর্জ্য আকারে শরীরের বাইরে বের করে দেবে।

সুগার সাবস্টিটিউট ব্যবহার করুন :
ওজন বৃদ্ধি বা মুটিয়ে যাওয়ার একটি অন্যতম কারণ হলো অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ। যেসব খাবারে চিনি ব্যবহার করা হয় সেসব খাবারে চিনির পরিবর্তে সুগার সাবস্টিটিউট ব্যবহার করুন।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ