Home / লাইফস্টাইল / শীতের সকালে চাই ঝলমলে ত্বক? রাতেই সেরে নিন মাত্র ১০ মিনিটের রূপচর্চা

শীতের সকালে চাই ঝলমলে ত্বক? রাতেই সেরে নিন মাত্র ১০ মিনিটের রূপচর্চা

শীতের আগমন ত্বকের রুক্ষতাই প্রমান করে দিচ্ছে। শীতকালে ত্বক নিষ্প্রাণ ও রুক্ষ হয়ে পড়ে। ত্বক চায় একটু আলাদা যত্ন। এই জন্য শীতে নিয়মিত ত্বকের যত্ন নেয়া উচিত। কিন্তু ব্যস্ততার এই যুগে কার বা সময় আছে আলাদা ভাবে ত্বকের একটু বেশি যত্ন নেয়ার। কিন্তু ঠিক মত যত্ন না নিলে ত্বকের উজ্জলতা হারায়, ত্বকের উপরিভাগ কালো হয়ে আসে এবং ত্বক ফেটে যায়। তাই আজকে আপনাদের জন্য রইল ৩ টি অতি জরুরী ফেসিয়াল মাস্ক। যা ত্বককে শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচায়। সারাদিন যারা কাজের ব্যস্ততায় সময় করে উঠতে পারেন না তারা রাতে বাসায় ফিরে ঘুমানোর পূর্বে অনায়েসে এই ফেসিয়াল মাস্ক তৈরি করে ত্বকে উজ্জলতা ফিরিয়ে আনতে পারেন।

চিনি ও জলপাই তেলের(অলিভ অয়েল) ফেসিয়াল মাস্ক
সব ধরনের ফেসিয়াল মাস্কের মধ্যে এই মাস্কটি সবচাইতে সহজ। কারন এই মাস্কটির উপাদান অনেক সহজলভ্য এবং এটা তৈরি করাও সহজ। কিন্তু এর কার্যকারিতা অনেক বেশি। অলিভ অয়েল ত্বককে কোমল করে ও চিনি ত্বকের উপরিভাগের মরা কোষ দূর করে।

lemon_sugar_olive_oil_honey_scrub-483x500পদ্ধতিঃ
এই মাস্কটি তৈরি করতে আপনার লাগবে চিনি ও অলিভ অয়েল। ২ চা চামচ চিনি ও ২ চা চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। যোগ করতে পারেন কয়েক ফোঁটা লেবুর রস। এটা দাগছোপ দূর করতে সহায়তা করবে। এরপর এই মিশ্রণটি হাতের তালুতে নিয়ে মুখের ত্বকে হালকাভাবে ঘষে লাগান। মুখে এই মিশ্রণটি ১০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২/৩ বার করুন। ত্বকের উজ্জলতার পরিবর্তন আপনি নিজেই দেখতে পাবেন।

ওটমিল ও মধুর ফেসিয়াল মাস্ক
ওটমিল বর্তমানে সবাই আমরা চিনি। ওজন কমানোতে ওটমিলের জুড়ি নেই। কিন্ত আমরা অনেকেই জানি না ওটমিল ত্বকের জন্য কতোটা উপকারি। ওটমিল একটি প্রাকৃতিক স্ক্রাবার। ওটমিলের সাথে মধুর এই ফেসিয়াল মাস্কটি ত্বকের যত্নে অত্যন্ত কার্যকরী। ওটমিল ত্বকের উপরিভাগ স্ক্রাব করে উজ্জ্বল করে। আর মধুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ত্বককে ব্রনের হাত থেকে রক্ষা করে ও কমনীয়তা বজায় রাখে।

পদ্ধতিঃ
এই ফেসিয়াল মাস্কটির জন্য আপনার লাগবে ১ কাপ ওটমিল, ১ চা চামচ দই, ১ টি দিমের সাদা অংশ ও পরিমাণ মত মধু। প্রথমে ব্লেন্ডারে ১কাপ ওটমিল নিয়ে ব্লেন্ড করে মিহি গুঁড়ো করে নিন। এরপর একটি পাত্রে মিহি গুঁড়ো করা ওটমিল, ১ চা চামচ দই ও ১ টি দিমের সাদা অংশ নিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এরপর এতে মধু মেশান। মিশ্রণটি পেস্টের মত হলে মধু মেশানো বন্ধ করুন। এরপর এই পেস্টটি মুখে মাস্কের মত লাগান। ১০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে আলতো ঘষে তুলে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২ বার করলে ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে পারবেন।

স্ট্রবেরি এবং দইএর ফেসিয়াল মাস্ক
শীতকালীন এই ফল স্ট্রবেরি খেতে যতটা সুস্বাদু ততোটাই উপকারি। স্ট্রবেরি প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের কোমলতার জন্য একটি অসাধারন উপাদান। এবং স্ট্রবেরির বাইরের অংশের ছোট ছোট বীজ খুব ভালো একধরণের স্ক্রাবার। অন্যদিকে দই ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে সব সময়ের জন্যই উপকারী।

পদ্ধতিঃ
এই মাস্কটি তৈরি করতে লাগবে ২/৩ টি স্ট্রবেরি ও ২ চা চামচ দই। প্রথমে একটি বাটিতে ২/৩ টি স্ট্রবেরি নিয়ে চামচের মাধ্যমে ম্যাশ করুন। এরপর এতে ২ চা চামচ দই নিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর মিশ্রণটি আলতো ঘষে ত্বকে লাগান। ১৫ থেকে ২০ মিনিট এই মিশ্রণটি ত্বকে থাকতে দিন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে একটি পাতলা তোয়ালে দিয়ে পানি মুছে ফেলুন। এই মাস্কটি ত্বকের উজ্জলতা ও কোমলতা বৃদ্ধির সাথে সাথে ত্বকে একটি মিষ্টি সুগন্ধ তৈরি করে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ