Home / লাইফস্টাইল / দূর করুন সন্তানের একঘেয়েমী

দূর করুন সন্তানের একঘেয়েমী

chiyan_vikram_baby_sarah_photos_002কিছুদিন ধরেই বেশ মনমরা হয়ে আছে আপনার সন্তানটি। সবকিছুতেই বেশ বিরক্তি প্রকাশ করছে সে। স্কুলে যেতেও ভালো লাগছেনা তার। কাজকর্ম, খেলাধুলাতেও আগের মত উৎসাহ নেই। কেন এমন হচ্ছে জিজ্ঞেস করলে সবসময়েই সে বলছে তার কিছু ভালো লাগে না কিংবা একঘেয়ে লাগছে তার কাছে সব কিছু। কী করবেন এমন পরিস্থিতিতে?

প্রতিদিনের একই রুটিনের ক্লাস, পড়াশোনা, ঘুম সব মিলিয়ে অনেক শিশুই একঘেয়েমিতে ভোগে। আর তখন প্রতিদিনের জীবনটাকে অনেক বেশি বিবর্ণ ও বিরক্তিকর মনে হয় তাদের কাছে। আর তার ফলে স্কুলে কিংবা বাসায় কোথাও মন বসতে চায় না। এমন পরিস্থিতিতে অভিভাবকের উচিত সন্তানের একঘেয়েমি দূর করার চেষ্টা করা। আসুন জেনে নেয়া যাক সন্তানের একঘেয়েমি দূর করার ৪টি উপায়।

সন্তানকে সময় দিন

1552827_10202279199715484_701491631_nআপনি এবং আপনার সঙ্গী দুজনেই হয়তো চাকরি করেন কিংবা কাজকর্ম নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। আর আপনার এই ব্যস্ততা হয়তো একা করে দিচ্ছে আপনার সন্তানকে। এবং এই একাকিত্বের কারনেই আপনার সন্তানের জীবন হয়ে উঠছে একঘেয়ে। তাই সন্তানের জীবন একঘেয়ে হয়ে গেলে কিছুটা সময় দিন সন্তানকে। প্রয়োজনে কর্মক্ষেত্র থেকে ছুটি নিন। সারাদিন সন্তানের সাথে গল্প করুন, খেলুন, তার পছন্দের খাবার বানিয়ে দিন। তাহলে সন্তানের একঘেয়েমী অনেকটাই কেটে যাবে।

বেড়াতে যান
সন্তানকে নিয়ে বেড়িয়ে আসুন দূরের কোনো যায়গা থেকে। আপনার সন্তান যখন একঘেয়েমিতে ভুগবে তখন তাঁকে নিয়ে শহরের বাইরের কোনো সুন্দর জায়গায় নিয়ে যান। সেখানে দু/একদিন থেকে আসুন। একঘেয়ে রুটিনের বাইরে নতুন কোনো জায়গায় গিয়ে কয়েকদিন বেড়ালে একঘেয়েমী দূর হয়ে যাবে এবং সন্তানের মন আনন্দে ভরে উঠবে। আর যদি দূরে কোথাও যাওয়া সম্ভব না হয় তাহলে কাছাকাছি কোনও আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে যেতে পারেন তাঁকে। সন্তানের বন্ধুদের নিয়ে আয়োজন করে ফেলতে পারেন একটি ছোটখাটো পিকনিকের। একঘেয়েমী কিছুটা দূর করার জন্য শিশুপার্ক গুলোতেও বেড়াতে নিয়ে যেতে পারেন আপনার আদরের সন্তানটিকে।

নতুন খেলনা ও বই কিনে দিন

একই পুরনো খেলনা গুলো কিংবা গল্পের বই গুলো দেখতে দেখতে হয়তো আপনিই বিরক্ত হয়ে গিয়েছেন। তাহলে আপনার সন্তানের কাছে তো সেগুলো একঘেয়ে লাগবেই তাইনা? তাই কিছুদিন পর পর সন্তানকে নতুন বৈচিত্র্যময় খেলনা এনে দিন। তাহলে তাঁকে একঘেয়েমীতে পেয়ে বসবে না। এছাড়াও নতুন নতুন রঙিন গল্পের বই, ছবি আঁকার বই কিংবা রঙ-তুলি এনে দিতে পারেন। এতে সন্তানের একঘেয়েমী দূর হবে এবং সৃজনশীলতা বৃদ্ধি পাবে।

বাইরে খেলতে পাঠান
এখন বাচ্চাদের খেলাধুলা মানেই কম্পিউটার গেম। আর কম্পিউটারে গেম খেলতে খেলতে জীবনটাকে একঘেয়ে লাগাটাই স্বাভাবিক। এছাড়াও সারাদিন এক জায়গায় বসে বসে কম্পিউটার গেম খেলাটা স্বাস্থ্যের জন্যও ক্ষতিকর। তাই আপনার সন্তানের একঘেয়েমী দূর করার জন্য এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য তাঁকে বাইরের খোলা মাঠে খেলার ব্যবস্থা করে দিন। বাড়ির বাইরে খেলার যায়গা না থাকলে ক্রিকেট, ফুটবল, বাস্কেটবল কিংবা সুইমিং ক্লাবগুলোতে ভর্তি করে দিন। প্রতিদিন বাইরে খেলাধুলা করলে শারীরিক পরিশ্রম হবে এবং একঘেয়েমী দূর হয়ে যাবে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ