Home / আন্তর্জাতিক / শান্তি পরিকল্পনা বাস্তবায়নে উদ্যোগ নিন : হানিয়া

শান্তি পরিকল্পনা বাস্তবায়নে উদ্যোগ নিন : হানিয়া

রয়টার্স
গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়া ফিলিস্তিনি দলগুলোর মধ্যকার মতবিরোধ নিরসন এবং জাতীয় ঐকমত্যের সরকার প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন।
আল মানার টিভি চ্যানেল জানিয়েছে, ইসমাইল হানিয়া শুক্রবার গাজায় এক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অভ্যন্তরীণ মতবিরোধের কারণে ফিলিস্তিনি জনগণের দুঃখ-দুর্দশার কথা তুলে ধরেছেন। তিনি বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস কায়রো ও দোহা চুক্তির ভিত্তিতে নিজেদের মধ্যকার মতভেদ নিরসন এবং জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠনের বিষয়ে বৈঠকের উদ্যোগ নিতে পারেন। ইসমাইল হানিয়া ইসরাইল ও স্বশাসন কর্তৃপক্ষের মধ্যে নতুন করে আপস আলোচনা শুরু হওয়ার কথা উল্লেখ করে বলেছেন, বিগত বছরগুলোতে অনুষ্ঠিত আপস আলোচনা থেকে প্রমাণিত হয়েছে, আলোচনা করে ইসরাইলের অপরাধযজ্ঞ ও সম্প্রসারণকামী তত্পরতা ঠেকানো সম্ভব নয়। তিনি বলেন, একমাত্র প্রতিরোধের মাধ্যমেই ফিলিস্তিনি জাতির অধিকার আদায় করা সম্ভব।
ফিলিস্তিনের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়া এমন সময় দোহা ও কাতার সমঝোতার ভিত্তিতে সব দলের অংশগ্রহণে বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছেন যখন তিন বছর বিরতির গত জুলাই মাসে ইসরাইল ও ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের মধ্যে নতুন করে আপস আলোচনা শুরু হয়েছে। এর আগে দখলীকৃত ভূখণ্ডে ইসরাইল ইহুদি উপশহর নির্মাণ কাজ বন্ধ করতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে ২০১০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শান্তি আলোচনা স্থগিত হয়ে গিয়েছিল।
ফিলিস্তিনের প্রতিদ্বন্দ্বী দুই গ্রুপ ফাতাহ ও ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ২০১১ সালের মে মাসে মিসরের রাজধানী কায়রো এবং ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে কাতারের রাজধানী দোহায় নিজেদের মধ্যকার মতবিরোধ নিরসন এবং জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠনের বিষয়ে আলাদা দুটি চুক্তি সই করে। কিন্তু ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের বাধার কারণে ওই চুক্তি আজও বাস্তবায়িত হতে পারেনি। অবশ্য স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ফিলিস্তিনি দলগুলোর সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা করে জাতীয় শান্তি চুক্তির প্রায় কাছাকাছি চলে গিয়েছিলেন। কিন্তু চূড়ান্ত চুক্তিতে উপনীত হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে মার্কিন চাপ, প্রলোভন ও হুমকির কাছে মাথা নত করে তিনি হামাসের সঙ্গে শান্তি চুক্তি করা থেকে সরে আসেন।
হামাস গত দুই বছর ধরে শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠনের জন্য ব্যাপক চেষ্টা চালিয়ে আসছে, যাতে ঐক্যবদ্ধ ফিলিস্তিন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজেদের অবস্থানকে সুদৃঢ় করতে পারে এবং বিশ্ববাসীর কাছে নিজেদের অসহায়ত্বের বিষয়টি তুলে ধরতে পারে। কিন্তু ইসরাইল ও আমেরিকার ষড়যন্ত্র এবং মাহমুদ আব্বাসের নেতৃত্বে ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষও তাদের অনুসরণ করায় হামাসের এ চেষ্টা আজ পর্যন্ত সফল হয়নি।
যাই হোক, মিসরে চলমান রাজনৈতিক উত্তেজনা, হামাসের সঙ্গে স্বাক্ষরিত চুক্তি বাস্তবায়নে স্বশাসন কর্তৃপক্ষের অনীহা এবং স্বশাসন কর্তৃপক্ষ ইসরাইল ও আমেরিকার নীতি অনুসরণ করার কারণে ফিলিস্তিনিদের জাতীয় শান্তি পরিকল্পনা কার্যত অচলাবস্থার সম্মুখীন হয়েছে। এ অবস্থায় ইসরাইলের আগ্রাসন মোকাবিলা করা এবং পাশ্চাত্যের সরকারগুলো বিশেষ করে আমেরিকার ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার জন্য ফিলিস্তিনিদের মধ্যে ঐক্য ও সংহতি জোরদার করার কোনো বিকল্প নেই।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ