Home / আন্তর্জাতিক / ‘গ্রেফতারের পর দেবযানীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয়’
‘গ্রেফতারের পর দেবযানীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয়’

‘গ্রেফতারের পর দেবযানীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয়’

ভিসা জালিয়াতি ও গৃহপরিচারিকাকে চুক্তি অনুযায়ী পারিশ্রমিক না দিয়ে বেশি কাজ করানোর অভিযোগে নিউইয়র্কে আটক ভারতীয় কনস্যুলেটের কূটনীতিক দেবযানী খোবরাগাড়েকে কোনো আইনি ছাড় দেয়া হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রদপ্তর। ভারতের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানীকে গ্রেফতারের বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে আইনের আওতায় পড়ে বলেও দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর পরিষ্কার করে বলেছে, ভিয়েনা চুক্তি অনুযায়ী কূটনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে কোন কাজ করলে তখনই কেবল কূটনৈতিক রক্ষাকবচ মিলতে পারে। দেবযানীর গ্রেফতারি নিয়ে এরই মধ্যে ভারতে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। মার্কিন সরকারের নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন অনেকেই।
গ্রেফতারের পর দেবযানীকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয়েছে বলে জানা গেছে। এমনকি তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহারও করা হয়। জানা গেছে, দেবযানীকে মাদকাসক্তদের সঙ্গে রাখা হয় এবং তাঁর ডিএনএ পরীক্ষাও করা হয়।
এদিকে, ভারতীয় কূটনীতিক দেবযানী খোবরাগাড়ের গ্রেফতারকে কেন্দ্র করে দিল্লি-ওয়াশিংটন বিরোধ চরমে পৌঁছেছে। দেবাযানিকে বিবস্ত্র করে তল্লাশি এবং গ্রেফতারের ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে আমেরিকান কংগ্রেসের এক প্রতিনিধিদলের সঙ্গে প্রস্তাবিত বৈঠকও বাতিল করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীলকুমার শিন্ডে ও কংগ্রেস সহসভাপতি রাহুল গান্ধী।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ভিসা আবেদনে মিথ্যা তথ্য ও প্রতারণা এবং ব্যক্তি শোষণের অভিযোগে নিউ ইয়র্কে ভারতীয় ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানি খোবরাগেডকে গ্রেফতার করা হয়ছে। শীর্ষস্থানীয় ভারতীয় এ নারী কূটনীতিককে জনসমক্ষে হাতকড়া লাগিয়ে গ্রেফতার করা হয়।
বৃহস্পতিবার মেয়েকে স্কুলে দিয়ে আসার সময় রাস্তায় জনসমক্ষে হাতকড়া পরিয়ে গ্রেফতার করা হয় তাকে। গ্রেফতারের পর দুই লাখ ৫০ হাজার ডলার জামানত দিয়ে জামিনে মুক্তি পান দেবজানি। জামিন পেলেও তিনি যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগ করতে পারবেন না এবং যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরেও কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে চলাচল করতে হবে।
দেবযানির বিরুদ্ধে ভারতের এক নাগরিকের ভিসা আবেদনে মিথ্যা ও প্রতারণার আশ্রয় নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। ম্যানহাটনের রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলি প্রিট ভারার আদেশে গ্রেফতার করা হয় দেবযানিকে। ভারার অভিযোগে বলেছিলেন, বাসার কাজের বুয়ার জন্য মিথ্যা ডকুমেন্ট দাখিল করেছিলেন তিনি। অভিযোগে বলা হয়েছে, সঙ্গীতা রিচার্ড নামের ওই নারীকে শোষণ করা হচ্ছিল। তাকে দিয়ে অস্বচ্ছভাবে ও সামান্য বেতনে কাজ করানো হচ্ছিল।
প্রিট ভারার অভিযোগে বলেছেন, এ ধরনের প্রতারণা ও ব্যক্তি শোষণ যুক্তরাষ্ট্রে সহ্য করা হবে না। ভিসার আবেদনে সঙ্গীতার মাসিক বেতন চার হাজার ৫০০ ডলার দেখালেও তাকে মাত্র ৫৩৭ ডলার দেয়া হতো।
দুই কন্যা সন্তানের জননী দেবযানি খোবরাগেড নিউ ইয়র্কে মার্কিন কনস্যুল জেনারেলের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও নারীবিষয়ক প্রধান। অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে ১৫ বছরের জেল হতে পারে দেবযানির।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ