Home / আন্তর্জাতিক / দিল্লিসহ চার প্রদেশে বিজেপির জয়, চমক দেখালো এএপি

দিল্লিসহ চার প্রদেশে বিজেপির জয়, চমক দেখালো এএপি

BJPnewভারতের বিধানসভা নির্বাচনে দিল্লিসহ চার রাজ্যে জয় পেয়েছে বিরোধী ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। দিল্লিতে চমক দেখিয়েছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের স্লোগান নিয়ে মাঠে নামা অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। আর চার রাজ্যেই ভরাডুবি ঘটেছে ক্ষমতাসীন কংগ্রেসের। আগামী বছর লোকসভা নির্বাচনের আগে এই নির্বাচনকে সেমিফাইনাল হিসেবে দেখা হচ্ছে। নির্বাচনে পরাজয়ে কংগ্রেসের নেতা-কর্মীদের মনে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী দলে সংস্কারের কথা বলেছেন। শিগগিরই লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বিজেপি নেতা-কর্মীরা উল্লাস প্রকাশ করছেন। খবর এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

দিল্লিতে পরাজয় মেনে নিয়েছে তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী শিলা দীক্ষিত। গতকাল সকাল ৮টা থেকে ভোট গণনা শুরু হয়। দিল্লির ৭০টি আসনের মধ্যে ৩২ টি আসন পেয়েছে বিজেপি। এবারের নির্বাচনে বিজেপি গতবারের চেয়ে ৯টি আসন বেশি পেয়েছে। আর ২৮ টি আসন পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ৮ টি আসন। অথচ গতবারেরর নির্বাচনে দলটি ৪৩ টি আসন পেয়ে জয় পেয়েছিল। ছত্রিশগড়ের ৯০ টি আসনের মধ্যে বিজেপি ৪৯ টি আসন পেয়ে জয়লাভ করেছে এবং কংগ্রেস জয় পেয়েছে ৩৯ টি আসনে। কেবল এই রাজ্যেই কংগ্রেস গতবারের চেয়ে একটি আসন বেশি পেয়েছে। আর বিজেপি একটি আসন কম পেয়েছে গতবারের চেয়ে। মধ্যপ্রদেশে ২৩০ টি আসনের মধ্যে বিজেপি ১৬৫ টি যা গতবারের চেয়ে ২২ টি আসন বেশি এবং কংগ্রেস ৫৮ টি আসন পেয়েছে যা গতবারের চেয়ে ১৩ টি আসন কম। রাজস্থান রাজ্যে মোট আসন ১৯৯ টি। এর মধ্যে ১৬২ টি আসন পেয়ে প্রথম স্থান পেয়েছে বিজেপি। আর ক্ষমতাসীন কংগ্রেস পেয়েছে ২১ টি। গতবারের নির্বাচনের চেয়ে এই রাজ্যে কংগ্রেসের ৭৪ টি আসন কমেছে। অন্যদিকে বিরোধী বিজেপির ৮৪ টি আসন বেড়েছে।

এই তাকলাগানো ফল লাভের পর চার রাজ্যেই সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিজেপি। দিল্লিতে বিরোধী দলের আসনে বসবেন বলে জানিয়েছেন কেজরিওয়াল। দেশটির নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, এই নির্বাচনে ৬৫ দশমিক ৬৮ শতাংশ ভোটার উপস্থিতি ছিল যা রেকর্ড। নির্বাচনে জয়ের জন্য বিজেপির মধ্যে আগামী লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী নরেন্দ্র মোদিকে বাহবা দেওয়ার তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। বিজেপির মুখপাত্র নিরমলা সিথারাম বলেছেন, এই ভোট কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। জনগন এই দলটিকে আর চায় না। এছাড়া নির্বাচনে মোদির প্রভাব রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। আর কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী নির্বাচনী ফলাফলে হতাশা প্রকাশ করে বলেন, আমি জনগণের দেওয়া রায় মেনে নিয়েছি। তিনি ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষ্যে দলের মধ্যে সংস্কারের ঘোষণা দেন। তিনি শিগগিরই সুবিধাজনক সময়ে এই নির্বাচনে দলের প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন বলেও জানান। তিনি বিরোধীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, পরাজয়ের কারণ সম্পর্কে গভীরভাবে তদন্ত করা হবে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ