Home / আন্তর্জাতিক / এক নরখাদক তার মাকেও খেয়ে ফেলেছে!
এক নরখাদক তার মাকেও খেয়ে ফেলেছে!

এক নরখাদক তার মাকেও খেয়ে ফেলেছে!

মানুষখেকো এক ব্যক্তির খোঁজ পাওয়া গেছে ভারতে। করণ সিং নামের ঐ ব্যক্তির হাত থেকে রক্ষা পায়নি তার নিজের জন্মদাত্রী হতভাগা মাও। এই নরমাংসেভাজীকে আটক করেছে ভারতের পুলিশ।

ঐ মানুষখেকো ব্যক্তি মানুষদের কুঠার দিয়ে হত্যা করে তাদের রক্ত পান করতো এবং শরীরের বিভিন্ন অংশ ভক্ষণ করতো। এ প্রক্রিয়ায় একদিন তার মাকেও সে বক্ষন করে।

অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে সেই নরখাদক যুবক। ৩৮ বছরের করণ সিং গত ১০ দিনে খুন করেছে অন্তত তিন জনকে। নিহতদের মধ্যে দু’জন মধ্যপ্রদেশ এবং একজন রাজস্থানের। তিনজনের ক্ষেত্রেই মৃতদের রক্ত পান করা ছাড়াও করণ খেয়েছে তাদের দেহাংশ। ৬, ১৩ এবং ১৬ ডিসেম্বর তাদের হত্যা করে করণ সিং।

সিরিয়াল নরখাদক এই করণকে গত মঙ্গলবার পাকড়াও করেছে মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থানের যৌথ পুলিশ বাহিনী৷ রাজস্থানের বরাহ জেলায় যখন চতুর্থ শিকার ধরতে গিয়েছিল করণ, তখনই পুলিশ তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে৷ গুনার পুলিশ সুপার পি এস বিস্ত জানিয়েছেন, সময়মতো পুলিশ ঘটনাস্থলে না পৌঁছলে হয়তো আর অনেককে মেরে ফেলত সে৷

রাজস্থানের এসপি জানিয়েছেন, গত সপ্তাহে পরপর তিনজনকে খুন করেছে করণ৷ গত ৬ ডিসেম্বর গুনা জেলার রামপুরিয়া গ্রামে হানা দিয়ে হরিরাম বাবাকে (৪৮) কুপিয়ে খুন করেছিল করণ৷ এরপর ১৩ ডিসেম্বর রামপুরিয়া থেকে আট কিলোমিটার দূরে সেমরা গ্রামের একটি খামারবাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল একটি দেহ৷ দু’টি ঘটনাতেই খুনির একই উদ্দেশ্য ছিল৷ তখন থেকেই সন্দেহ দানা বাধে৷ এরপরেই ফের বরাহ গ্রামে একইরকম একটি খুনের ঘটনা ঘটে৷ শেষ পর্যন্ত ধরা পড়ে যায় খুনি৷” খুনের পর দেহগুলি কচুকাটা করে রক্ত চুষেও খেয়েছে করণ৷ শেষবার করণ যাকে খুন করেছে তার দুটো পা কেটে করণ খেয়ে ফেলেছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

গ্রামবাসীরা পুলিশকে জানিয়েছে, আট বছর আগে নিজের মাকে খুন করে মায়ের রক্তও চুষে খেয়েছিল করণ৷ বন্যপ্রাণী শিকার করে তাদের মাংস খাওয়াই তার অভ্যাস ছিল৷ তাই সেমরা গ্রাম সংলগ্ন একটি গভীর জঙ্গলেই সে থাকত৷ গত কয়েক বছর ধরে জঙ্গলের ভিতরে একটি গাছের উপর মাচা বেধেই থাকত করণ৷

পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, মাচার উপর থেকে ছ’টি কুঠার উদ্ধার করা হয়েছে৷ পাওয়া গিয়েছে রক্তমাখা একটি কম্বলও৷ ৩৮ বছর বয়সী করণ গুনার বাসিন্দা৷ পুলিশকে সে তার আসল নাম ফাঁস করেনি৷ গ্রামবাসীদের কাছ থেকেই তার নাম জানতে পেরেছে পুলিশ৷

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ