Home / খেলা / সাকিব-তামিমের ফাইনাল

সাকিব-তামিমের ফাইনাল

পঞ্চম রাউন্ডেই ফাইনাল খেলা নিশ্চিতের সুযোগ ছিল প্রাইম ব্যাংকের। কিন্তু ইউসিবি-বিসিবি একাদশের কাছে শেষ ওভারে হেরে যায় সাকিব আল হাসানের দল। ফলে আম্বার বিজয় দিবস টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলতে অপেক্ষায় থাকতে হয় গতকালের আবাহনী ম্যাচ পর্যন্ত। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে আবাহনীকে ১৬ রানে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে প্রাইম ব্যাংক। আগামীকাল ফাইনাল। দুপুর ৩টায় খেলাটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ টেলিভিশন।

প্রথম পর্বেও আবাহনীকে হারিয়েছিল প্রাইম। গতকালের ম্যাচটি আনুষ্ঠানিকতার ছিল আবাহনীর। প্রথম পাঁচ ম্যাচে একটি জয় পাওয়া আবাহনীকে আগেই ফাইনালের পথ থেকে ছিটকে দিয়েছিল। আর প্রাইমের জন্যও পরোক্ষভাবে ছিল আনুষ্ঠানিকতার। কেননা রানরেটে দলটির ফাইনাল প্রায় নিশ্চিত ছিল। তারপরও অনিশ্চয়তার খেলা বলে গতকাল জিততেই হতো সাকিবদের। সেটা ভালোভাবেই সেরে নিয়েছেন সাকিবরা। আগামীকাল ২০ লাখ টাকা জয়ের জন্য খেলবে দলটি। গতকাল প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৭৫ রান করে প্রাইম ব্যাংক। দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৯ রান করেন এনামুল হক বিজয়। বিজয় টুর্নামেন্টের এখন পর্যন্ত একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান। ১০৫ রান করেছিলেন মোহামেডানের বিপক্ষে। ওই ম্যাচে অবশ্য ৬ উইকেট নিয়েছিলেন সাকিব। গতকাল বিজয়ের ইনিংসটি ছিল ৪৩ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় সাজানো। অধিনায়ক সাকিব ২৫ রান করেন ১৯ বলে। সাবি্বর রহমান রুম্মন ২৬ রান করেন ২৫ বলে। ১৭৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে প্রাইমের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৯১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে আবাহনী। সেখান থেকে নাজমুল মিলন ও সোহরাওয়ার্দী শুভ চেষ্টা করেন ম্যাচ জেতার। কিন্তু ৮.৪ ওভারে ৬৮ রানের বেশি যোগ করতে পারেননি দুই ব্যাটসম্যান। মিলন অপরাজিত ছিলেন ৪৬ রানে। ৩৮ বলের ইনিংসটিতে ছিল ১ চার ও ৩টি চক্কা। শুভ অপরাজিত ছিলেন ৩৫ রানে। প্রাইমের পক্ষে সাকিব ও সোহাগ গাজী একটি করে উইকেট নেন যথাক্রমে ২৪ ও ২৬ রানে।

ভারত থাকায় দলের প্রথম ম্যাচ খেলেননি সাকিব। ওই ম্যাচেই হেরে যায় প্রাইম ব্যাংক। সাকিব যোগ দেওয়ার পর থেকেই জয়ের রাস্তায় উঠে আসে দল।

এদিকে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মোহামেডানকে ২৯ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে তামিমের বিসিবি একাদশ। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে তামিমের ১৩০ রানের কৃতিত্বে বিসিবি একাদশ ৪ উইকেটে ২১৭ রান সংগ্রহ করে। পরে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল মোহামেডান। অমি ৮০, জুনায়ের সিদ্দিকী ৩৬ রান করলেও বাকিরা সুবিধা করতে না পারায় মোহামেডান ১৮৮ রানে ওলআউট হয়ে যায়।

জিততে থাকা দলের অধিনায়ক হিসেবে ফাইনাল খেলার কথা জানিয়েছিলেন সাকিব। গতকাল ফাইনালে উঠার পর জানান শিরোপা জেতার কথা, ‘আমাদের প্রথম টার্গেট ছিল ফাইনাল। সেটা নিশ্চিত হয়েছে। এখন চ্যাম্পিয়ন হতে চাই। দলের যে অবস্থা, তাতে আশা করি চ্যাম্পিয়ন হতে পারব।’ আবাহনী খেলেছে নিয়মিত অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে ছাড়া। কোমড়ের ব্যথার জন্য শেষ তিন রাউন্ডে অংশ নেননি টাইগার অধিনায়ক।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

প্রাইম ব্যাংক : ১৭৫/৬, ২০ ওভার (এনামুল হক বিজয় ৬৯, সাকিব আল হাসান ২৫, সাবি্বর রহমান রুম্মন ২৬, অতি. ১৭। নাবিল সামাদ ২/৪০, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২/২০, শুভাশীষ রায় ১/৪১)।

আবাহনী : ১৫৯/৫, ২০ ওভার ( শামসুর রহমান শুভ ১৬, মিজানুর রহমান ১৫, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২০, নাজমুল মিলন ৪৬*, সোহরাওয়ার্দী শুভ ৩৫*। সাকিব আল হাসান ১/২৪, সোহাগ গাজী ১/২৬)।

ফল : প্রাইম ব্যাংক ১৬ রানে জয়ী

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ