Home / খেলা / পার্থে লড়ছে ইংলিশরা

পার্থে লড়ছে ইংলিশরা

সফরের শুরুতে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে নয়, ফেভারিট মনে করা হয়েছিল ইংল্যান্ডকেই। কিন্তু সেই ইংল্যান্ডের যে যাচ্ছেতাই অবস্থা। প্রথম দুই টেস্টে হেরে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০তে পিছিয়ে তারা। সিরিজে টিকে থাকতে হলে পার্থ টেস্টে ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া দ্বিতীয় রাস্তা নেই ইংলিশদের সামনে। কিন্তু ঘুরে দাঁড়ানোর বদলে প্রথম দিনে হতাশ করলেন ইংলিশ বোলাররা। তবে কাল দ্বিতীয় দিনে ভালো বোলিং করে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তারা। আর তাতেই আগের দিনে ৬ উইকেটে ৩২৬ রান করা অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় ৩৮৫ তে। মানে শেষ ৫৯ রান তুলতেই হারাতে হয় বাকি ৪ উইকেট।
অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের জবাবটাও বেশ ভালো দিচ্ছিলেন অ্যালিস্টার কুক ও মাইকেল কারবেরি। কিন্তু দু’জনই ফিরে যাওয়ার পর দ্রুত আরও দুই উইকেট পড়লে বিপদে পড়ে ইংল্যান্ড। সেই বিপদটা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছেন ইয়ান বেল ও বেন স্টোকস। দিন শেষে সফরকারীদের প্রথম ইনিংসে রান ৪ উইকেটে ১৮০। অজিদের প্রথম ইনিংস থেকে এখনও ২০৫ রানে পিছিয়ে তারা, হাতে ৬ উইকেট। মানে পার্থে কিছু করতে হলে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে ইংল্যান্ডকে।
৬ উইকেটে ৩২৬ রান নিয়ে কাল দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নামেন আগের দিন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ ও মিচেল জনসন। সকালে সবার দৃষ্টি ছিল এ জুটির ওপর। কিন্তু ইংলিশ বোলারদের দাপটে মোটেও সুবিধা করতে পারলেন না তারা। আগের দিনের সঙ্গে কোনো রান যোগ না করেই স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে ফিরে যান গত দুই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের নায়ক জনসন (৩৯)। কিছুক্ষণ পরেই তার পথ ধরেন আগের দিনে ১০৩ রানে অপরাজিত থাকা স্মিথ। জেমস অ্যান্ডারসনের বলে তিনি আউট হন ১১১ রানে। ইংলিশ পেসারদের দারুণ বোলিং বজায় তাকে এরপরও। যে কারণে বড় স্কোর গড়া হয়ে ওঠেনি অজিদের। অবশ্য লোয়ার অর্ডাররা চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চারশ’র নিচেই থেমে যায় স্বাগতিকদের ইনিংস।
বোলারদের কাছ থেকেই হয়তো ঘুরে দাঁড়ানোর প্রেরণা পেয়েছিলেন শততম টেস্ট খেলতে নামা অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক ও মাইকেল কারবেরি। অজি বোলারদের হতাশ করে ৮৫ রানের দারুণ জুটি গড়ে তোলেন দু’জন মিলে। কিন্তু ৪৩ রানে কারবেরি ফিরে যাওয়ার পর দ্রুত উইকেট পড়তে থাকে ইংল্যান্ডের। মাত্র ৪ রানেই ফিরে যান জো রুট। তবে ৭২ রানে কুকের ফিরে যাওয়াটা ছিল ইংল্যান্ডের জন্য সবচেয়ে বড় আঘাত। সুবিধা করতে পারেননি অভিজ্ঞ কেভিন পিটারসেনও। সেই পিটার সিডলের বলেই ফিরতে হয়েছে তাকে, ১৯ রান করে। বড় স্কোর গড়তে না পারলেও টেস্টে একটা ভালো একটা অর্জন হয়ে গেছে তার। টেস্টে আট হাজার রান পূরণ করেছেন পিটারসেন। শুধু তাই নয়, ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তিনিই সবচেয়ে দ্রুত আট হাজার রান করা ব্যাটসম্যান। পিটারসেন ফিরে যাওয়ার পর দারুণ ধৈর্যের পরিচয় দেন বেল ও স্টোকস। দিন শেষে বেল ৬২ বলে ৯ এবং ৪৩ বলে ১৪ রান করে ক্রিজে আছেন স্টোকস।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস : ৩৮৫/১০ (ওয়ার্নার ৬০, ক্লার্ক ২৪, স্মিথ ১১১, হাডিন ৫৫, জনসন ৩৯, সিডল ২১, হ্যারিস ১২, লায়ন ১৭*; ব্রড ৩/১০০, অ্যান্ডারসন ২/৬০, সোয়ান ২/৭১)।
ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস : ১৮০/৪ (কুক ৭২, কারবেরি ৪৩, পিটারসেন ১৯, বেল ৯ ব্যাটিং, স্টোকস ১৪ ব্যাটিং; হ্যারিস ১/২৬, সিডল ১/২৭, ওয়াটসন ১/৩২, লায়ন ১/৩৯)। (দ্বিতীয় দিন শেষে)

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ