Home / খেলা / হোয়াইট ওয়াশই হল জাতীয় দল!

হোয়াইট ওয়াশই হল জাতীয় দল!

ব্রেন্ডন ম্যাককালামের কষ্টটা এখন বুঝতে পারার কথা মুশফিকুর রহিমের। কদিন আগে যে মুশফিকুর রহিমের দল নিউজিল্যান্ডের মতো দাপুটে দলকে হোয়াইট ওয়াশ করে পাঠিয়েছে, গতকাল তারাই ‘ছোট ভাই’দের কাছে হোয়াইট ওয়াশ হওয়ার স্বাদ পেল।

জাতীয় দলের বিপক্ষে ‘এ’ দলের জয়টা এমনই অবধারিত হয়ে উঠেছে যে, শেষ ম্যাচে ১৮৮ রানের বিশাল পুঁজি করেও ৮ উইকেটের হারের মুখ দেখতে হল জাতীয় দলকে। ৩ ওভার ৩ বল হাতে রেখেই বিশাল এই লক্ষ্য পার হয়ে গেল ‘এ’ দল। সেই সঙ্গে জাতীয় দলের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টি ম্যাচের চ্যালেঞ্জ কাপে ৩-০ ব্যবধানের জয় পেল নাসির হোসেনের ‘এ’ দল!

দ্বিতীয় ম্যাচেই বেশ বড় রান করেও হারতে হয়েছিল জাতীয় দলকে। গতকাল সেই দুঃখও অতীত হয়ে যাওয়ার কথা মুশফিকদের।

যদিও ব্যাটিংয়ের শুরুটা জাতীয় দলের খুব একটা ভালো হয়নি। স্কোর বোর্ডে কোনো রান জমা হওয়ার আগেই আগে ব্যাট করতে নামা জাতীয় দল ওপেনার সৌম্য সরকারের উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল। এরপরই এনামুল হক বিজয়, মুশফিকুর রহিম ও সামসুর রহমান জাতীয় দলকে একটা ভিতের ওপর দাঁড় করিয়ে দেন।

এনামুল ও মুশফিকের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১০ বলে ২১ এবং মুশফিক ও সামসুর রহমানের তৃতীয় উইকেটে ২০ বলে ৫৫ রান যোগ হয়। এনামুল ৭ বলে ১৩, সামসুর রহমান ১২ বলে ৩৭ এবং মুশফিক ২৪ বলে ৩৮ রান করে আউট হন। তারপরও জাতীয় দলের স্কোর খুব বড় হতো না। সেটা করে দিলেন আব্দুর রাজ্জাক।

শেষ দিকে ব্যাট হাতে ঝড় তুলে ফেললেন এই বাঁহাতি স্পিনার। ১৫ বলে ৩টি চার ও ৩টি ছক্কায় সাজানো ৩৬ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত রইলেন। সঙ্গে সোহাগের ২০ এবং মাশরাফির ১৭ রান মিলিয়ে ২০ ওভার শেষে ১৮৮ রানের বেশ মোটাসোটা একটা স্কোরই দাঁড় করালো জাতীয় দল।

কিন্তু এই স্কোরকেও নিতান্ত মামুলি বানিয়ে ফেললেন ‘এ’ দলের টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যান। একেবারে প্রথম থেকে জাতীয় দলের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে যান ‘এ’ দলের দুই ওপেনার মার্শাল আইয়ুব ও মুমিনুল হক। ৬.২ ওভার টেকা এই জুটিতে ৭৪ রান উঠে যায়। ২০ বলে ২৫ রান করা মার্শালকে ফিরিয়ে জুটিটা ভাঙেন আল আমিন। এরপর মুমিনুলকেও আউট করেন আল আমিন। কিন্তু তার আগেই জাতীয় দলের ‘সর্বনাশ’ করে দিয়ে যান মুমিনুল; আউট হওয়ার আগে ২৩ বলে ৯টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো ৫৫ রান করে গেলেন।

মুমিনুল আর মার্শাল যা শুরু করেছিলেন, সেটাই শেষ করে গেলেন মিথুন আলী আর সাব্বির রহমান। অসমাপ্ত তৃতীয় উইকেটে এই দুজন ৫১ বলে ১০৩ রানের ম্যাচ জেতানো জুটি করে ফেরেন। শেষ পর্যন্ত মিথুন ৩০ বলে ৩টি চার ও ৬টি ছয়ে সাজানো ৬৭ রান করে অপরাজিত থাকেন। সাব্বির অপরাজিত থাকেন ২৭ বলে ৩৭ রান করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৮৮/৯ (সৌম্য ০, এনামুল বিজয় ১৩, সামসুর ৩৭, মুশফিকুর ৩৮, মাহমুদউল্লাহ ১৪, নাঈম ৫, সোহাগ ২০, মাশরাফি ১৭, রাজ্জাক ৩৬*, রুবেল ০, আল আমিন ২*; আরফাত সানি ২/৩৫, ইলিয়াস সানি ২/৩৩, ফরহাদ রেজা ০/২০, নাসির ২/৪০, আলাউদ্দিন বাবু ০/১০, সাব্বির ০/২৮, মুক্তার ৩/২১)।

বাংলাদেশ ‘এ’: ১৬.৩ ওভারে ১৯০/২ (মার্শাল ২৫, মুমিনুল ৫৫, মিথুন ৬৭*, সাব্বির ৩৭*; মাশরাফি ০/৩০, রুবেল ০/৩৫, রাজ্জাক ০/৪৫, সোহাগ ০/২৬, আল আমিন ২/২৮, সৌম্য ০/১৬, মাহমুদউল্লাহ ০/৮)।

ফল: বাংলাদেশ ‘এ’ ৮ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা: মিথুন আলী (বাংলাদেশ ‘এ’)

সিরিজ: বাংলাদেশ ‘এ’ ৩-০ ব্যবধানে জয়ী

এক নজরে চ্যালেঞ্জ কাপ

সেরা ব্যাটসম্যান

ব্যাটসম্যান দল ম্যাচ রান গড়

মুমিনুল হক ‘এ’ ৩ ১১০ ৩৬.৬৭

মুশফিকুর রহিম বাংলাদেশ ৩ ১০৭ ৩৫.৬৭

মিথুন আলী ‘এ’ ২ ১০৪ ১০৪.০০

সামসুর রহমান বাংলাদেশ ২ ৮৫ ৪২.৫০

এনামুল হক বাংলাদেশ ৩ ৮২ ২৭.৩৩

সেরা বোলার

বোলার দল ম্যাচ উইকেট গড়

নাসির হোসেন ‘এ’ ৩ ৫ ১৫.৪০

ইলিয়াস সানি ‘এ’ ৩ ৫ ১৬.৬০

আরফাত সানি ‘এ’ ৩ ৫ ১৮.৬০

আল আমিন বাংলাদেশ ৩ ৪ ২০.০০

আব্দুর রাজ্জাক বাংলাদেশ ৩ ৪ ২৭.০০

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ