Home / খেলা / জিতল শ্রীলঙ্কা, ধরে রাখল শীর্ষস্থানও

জিতল শ্রীলঙ্কা, ধরে রাখল শীর্ষস্থানও

52ac0dc95a7cb-Pakistan_Imageশ্রীলঙ্কাকে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান থেকে নামিয়ে আনার মিশন নিয়েই দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজটা শুরু করেছিল পাকিস্তান। শহীদ আফ্রিদির অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ভর করে প্রথম ম্যাচটা জিতেও গিয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচ আর জেতা হলো না হাফিজ বাহিনীর। ভালো লড়াই চালালেও শেষপর্যন্ত ২৪ রানের হার মেনে নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে পাকিস্তানকে। ২১২ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের ইনিংস শেষ হয়েছে ১৮৭ রানে। আর এই জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর জায়গাটা নিজেদের দখলেই রেখেছে শ্রীলঙ্কা।
শুরুতে ব্যাট করতে নেমেই জয়ের কাজটা অনেকখানি এগিয়ে রেখেছিলেন লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। কুশাল পেরেরার ৫৯ বলে ৮৪, তিলকারত্নে দিলশানের ৩৩ বলে ৪৮ ও কুমার সাঙ্গাকারার ২১ বলে ৪৪ রানের ঝোড়ো ইনিংসগুলোর সুবাদে মাত্র তিন উইকেট হারিয়েই ২১১ রানের পাহাড় গড়ে তোলে শ্রীলঙ্কা।
জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপের মুখে পড়ে পাকিস্তান। প্রথম চার ওভারের মধ্যে মাত্র ২৭ রান জমা করতেই হারায় আহমেদ শেহজাদ ও মোহাম্মদ হাফিজের উইকেট। তবে এর মধ্যেও লঙ্কান বোলারদের নাজেহাল করেছিলেন শারজিল খান। তিনি খেলেছেন দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৫ বলে ৫০ রানের বিস্ফোরক ইনিংস। এভাবেই চালিয়ে যেতে পারলে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যেতেও পারত পাকিস্তান। কিন্তু সচিত্র সেনানায়েকের সঙ্গে মিলে পাকিস্তানের সর্বনাশটা করে দেন এই ম্যাচেই অভিষিক্ত সিকুগে প্রসন্ন।
টানা দুই ওভারে এই দুই বোলার তুলে নেন শারজিল, উমর আকমল, উমর আমিন ও বিলাওয়াল ভাট্টির উইকেট। ১১ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ৯১ রান। এ অবস্থার মধ্যে উইকেটে এসে ঝোড়ো ব্যাটিং করে আবারও আশা জাগিয়েছিলেন আফ্রিদি। কিন্তু ১৪তম ওভারের প্রথম বলে মারমুখী এই ব্যাটসম্যানকে থামিয়ে দেন পেরেরা। অবশ্য উইকেটটির কৃতিত্ব যতটা পেরেরার, তার চেয়েও বেশি সাঙ্গাকারার। উইকেটকিপারের দায়িত্বে থাকা সাঙ্গাকারা অনেকটা দৌড়ে ঝাঁপিয়ে অবিশ্বাস্য একটা ক্যাচ নিয়েছেন।

১৩ বলে ২৮ রান করে ফিরে যান আফ্রিদি। এই পর‌্যায়ে জয় প্রায় নিশ্চিতই ধরে নিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার সমর্থকেরা। কিন্তু এর পরও ভালোই চমক দেখিয়েছে পাকিস্তানের লোয়ার অর্ডার। নবম উইকেটে মাত্র ৩৩ বলে ৬৩ রানের জুটি গড়ে বেশ ভালোই উত্তেজনা ছড়িয়েছিলেন সোহেল তানভির (৪১) ও সাইদ আজমল (২০)। তানভিরের ৪১ রানের ইনিংসটা টি-টোয়েন্টিতে নয় নম্বর ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড। কিন্তু তাঁদের এই প্রচেষ্টা হারের ব্যবধানটাই শুধু কমাতে পেরেছে। চার বল বাকি থাকতেই পাকিস্তানের ইনিংস গুটিয়ে গেছে ১৮৭ রানে।

দ্বিতীয় পাকিস্তানি হিসেবে এক বর্ষপঞ্জিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েছেন সাইদ আজমল। এর আগে পাকিস্তানি বোলারদের মধ্যে এক বর্ষপঞ্জিতে উইকেটের সেঞ্চুরি করেছিলেন সাকলায়েন মুশতাক।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ