Home / খেলা / নেইমারের হ্যাটট্রিকে বার্সার বিশাল জয়

নেইমারের হ্যাটট্রিকে বার্সার বিশাল জয়

দারুণ এক হ্যাটট্রিক দিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গোলখরা কাটালেন নেইমার। ব্রাজিলের এই তারকার দুর্দান্ত নৈপুণ্যে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে সেলটিককে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বার্সেলোনা।

বুধবার রাতে গ্রুপের অপর ম্যাচে আয়াক্সের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে নকআউট পর্বে বার্সার সঙ্গী হয়েছে এসি মিলান।

barcelona+Gerard+Pique+opens+the+scoring.png

জুভেন্টাস ও নাপোলি ছিটকে পড়ায় এবারের ইউরোপ সেরার মঞ্চে ইতালির একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে টিকে রইলো মিলান।

ঘরের মাঠ ক্যাম্প নউতে সাত মিনিটে গোল উৎসবের সূচনা করেন ডিফেন্ডার জেরার্দ পিকে। প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগের ব্যর্থতায় বল পান চিলির স্ট্রাইকার অ্যালেক্সিস সানচেস। তার নেয়া শটটি সেলটিকের গোলরক্ষক ফ্রেজার ফস্টার পা দিয়ে ঠেকিয়ে দিলেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। সে সুযোগেই লক্ষ্যভেদ করেন পিকে।

Barcelona's+Tello+celebrates+his+goal+against+Celtic

৩৯ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান স্ট্রাইকার পেদ্রো। নেইমারের বাড়ানো পাস থেকে গোলটি করেন তিনি।

এরপর শুরু ‘নেইমার শো’। ৪৪ মিনিটে ডিফেন্ডার মার্তিন মনতোয়ার পাস থেকে সহজেই বল জালে জড়ান নেইমার। গোলমুখে চূড়ান্ত এই আক্রমণ করার আগে সেলটিকের সীমানায় কয়বার যে বল দেয়া নেয়া করেছেন বার্সার খেলোয়াড়রা, তা গোনা ভার।

দলের দুই তারকা লিওনেল মেসি ও সেস ফ্যাব্রেগাসের অনুপস্থিতিতে দুর্দান্ত খেলতে থাকা নেইমারের এই গোলে বার্সার জয় ও গ্রুপের শীর্ষস্থান মোটামুটি তখনই নিশ্চিত হয়ে যায়।

নেইমারের প্রথম গোলটি যদি সহজে পাওয়া হয়, তার দ্বিতীয় গোলটি তো রাজকীয়। আবারও অসংখ্যবার নিজেদের মধ্যে বল দেয়া নেয়া করে গোলমুখে চূড়ান্ত আক্রমণ। চাভি হার্নান্দেসের সঙ্গে বল দেয়া-নেয়া করে ডি-বক্সের প্রান্ত থেকে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে জালের ওপরের কোণায় বল জড়িয়ে দেন নেইমার।

Neymar+celebrates+after+scoring+a+goal+against+Celtic+during+their+Champions+League

দশ মিনিট পরেই ব্রাজিল তারকা আবারও দেখালেন তার পায়ের যাদু। বাঁ দিক থেকে গোলমুখে ঢুকে এক ডিফেন্ডারবে বোকা বানিয়ে কাটানোর পর তিনি ফাঁকি দেন গোলরক্ষককেও। বার্সার জার্সিতে নেইমারের এটি প্রথম হ্যাটট্রিক।

ম্যাচের ৭২ মিনিটে সেলটিকের জালে শেষবার বল ঢোকান বদলি স্ট্রাইকার তেল্লো। ব্রাজিলের ডিফেন্ডার আদ্রিয়ানোর পাস থেকে গোলটি করেন তিনি।

৮৮ মিনিটে অতিথিদের পক্ষে স্বান্তনাসূচক গোলটি করেন জিওর্জিওস সামারাস। ফ্রি-কিক থেকে হেড করে গোলটি করেন তিনি।
ঘরের মাঠ সান সিরোতে এক পয়েন্ট পেলেই পরবর্তী রাউন্ড নিশ্চিত হতো মিলানের। কিন্তু ২২ মিনিটে মিডফিল্ডার রিকার্দো মন্তোলিভো সরাসরি লাল কার্ড দেখলে বিপদে পড়ে যায় স্বাগতিকরা। একজন কম নিয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার কাজটা অবশ্য ভালোভাবেই করেছে তারা।

গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচ শেষে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষস্থান পেয়েছে বার্সেলোনা। মিলানের পয়েন্ট ৯। আর এক পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে থাকায় ইউরোপা লিগে নেমে গেছে নেদারল্যান্ডসের আয়াক্স আমস্টারডাম। ইউরোপের মঞ্চে ব্যর্থ সেলটিকের সংগ্রহ ৩।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ