Home / খেলা / প্রোটিয়াদের সিরিজ জয়

প্রোটিয়াদের সিরিজ জয়

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই ওয়ানডে সিরিজ হারলো ভারত। আর এ নিয়ে প্রোটিয়াদের কাছে টানা দ্বিতীয় ম্যাচ হারল মহেন্দ্র সিং ধোনির বাহিনী ।
রোববার ডারবানে দ্বিতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচে ১৩৪ রানে জিতেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। জোহানেসবার্গেও স্বাগতিকরা জিতেছিল ১৪১ রানের বড় ব্যবধানে। তিন ম্যাচের সিরিজের শেষটি হবে ১১ ডিসেম্বর।
দক্ষিণ আফ্রিকা: ২৮০/৬ (৪৯ ওভার)
ভারত: ১৪৬/১০ (৩৫.১ ওভার)
ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী ১৩৪ রানে
অন্যদিকে আউটফিল্ড ভেজা থাকায় ম্যাচ এক ওভার করে কমিয়ে আনা হয়। ৪৯ ওভারে দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও হাশিম আমলার শতকে ২৮০ রানের বড় সংগ্রহ করে প্রোটিয়ারা। চ্যালেঞ্জিং এই স্কোর গড়তে গিয়ে তারা উইকেট হারায় ছয়টি। লক্ষ্যে নেমে এদিনও প্রতিপক্ষ পেসারের তোপে পড়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। আগের ম্যাচের মতোই ডেল স্টেইন রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন, তবে এবার তার চেয়ে এক ডিগ্রী উপরে ছিলেন আরেক পেসার লোনওয়াবো সোতসোবে।
বাঁহাতি এই বোলার সাত ওভার এক বল করে ২৫ রান দিয়ে নিয়েছেন চার উইকেট। স্টেইন নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে সাত ওভারে ১৭ রান দিয়ে নেন তিনটি উইকেট। অজিঙ্কা রাহানে ও সুরেশ রায়নার মতো গুরুত্বপূর্ণ দুটি উইকেট দখলে নেন মরনে মরকেল। সোতসোবে টপ অর্ডারে বোলিং তোপ দাগালে মাত্র ৩৪ রানে চার উইকেট হারায় সফরকারীরা।
ধোনির সঙ্গে রায়না ৪০ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধ গড়েন। ধোনি ১৯ ও রায়না ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৬ রানে আউট হলে ভারতের স্কোরবোর্ডের চেহারা দাঁড়ায় ৬ উইকেট ৯৫ রান। রবিন্দ্র জাদেজা ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ৩৮ রানের জুটিতে ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়া কিছুটা থেমেছিল। শেষদিকে স্টেইনের পেসের কাছে হার মানতে হয় সফরকারীদের। দ্বিতীয় সেরা ২৬ রান আসে জাদেজার ব্যাট থেকে। এর আগে পিচ ও আউটফিল্ড ধীরগতির দেখে এদিন ভারত তাদের বোলিং আক্রমণে বেশ পরিবর্তন এনেছিল। কিন্তু ৩৫ ওভার পর্যন্ত নিষ্ফল ছিল এই অদল-বদল। দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্বোধনী জুটিতে আমলা ও কক একসঙ্গে থেকে করেছেন ১৯৪ রান। এই দুই তারকার শতকই সবচেয়ে অবদান রাখে। গত ম্যাচে ক্যারিয়ার সেরা পারফরমেন্স করা কক এদিন টানা দ্বিতীয় শতক পেলেন। ম্যাচসেরার পুরস্কারও টানা দুবার বগলদাবা করলেন গাউটেংয়ের এই ব্যাটসম্যান। ক্যারিয়ারের তিন শতকের দুটিই পেলেন ভারতীয়দের বিপক্ষে। ১১২ বলে আট চারে তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছান বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ওয়ান্ডারার্সে ১৩৫ রান করা কক এদিন থামলেন ১০৬ রানে। তাকে অনুসরণ করে পরের ওভারে সাজঘরে ফেরেন আমলা। ক্যারিয়ারের দ্বাদশ শতক পেয়ে পঞ্চম বলেই মোহাম্মেদ সামির শিকার হন তিনি। ১১৭ বলে আট চারে সাজানো তার ১০০ রানের ইনিংস।
এরপর নিয়মিত বিরতিতে সামি আরও দুটি উইকেট তুলে নিলেও জেপি ডুমিনির ২৬ রানের পর রায়ান ম্যাকলারেন ও ভারনন ফিল্যান্দার সমান ৫ বল খেলে কয়েকটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে অবদান রাখেন। একটি করে চার ও ছয়ে ১২ রানে অপরাজিত ছিলেন ম্যাকলারেন। তিনটি চার মেরে ১৪ রানে টিকে ছিলেন ফিল্যান্দার।ভারতীয় পেসার সামি তিনটি উইকেট নেন। একটি করে পান রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজা।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ