Home / খেলা / ভয়হীন ক্রিকেট খেলতে হবে

ভয়হীন ক্রিকেট খেলতে হবে

বিশ্ব টি-টোয়েন্টির প্লেঅফ পর্বের বাধা পেরোতে হলে বাংলাদেশকে ভীতিহীন ক্রিকেট খেলতে হবে বলে মনে করেন জাতীয় দলের ওপেনার তামিম ইকবাল। শুক্রবার ম্যাটাডোর শেভিং ইন্ডাস্ট্রির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হন তামিম। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে সংবাদ মাধ্যমকে এ কথা বলেন তামিম।

বিশ্ব টি-টোয়েন্টির সুপার টেনে খেলাটা বাংলাদেশের জন্য খুবই কঠিন হবে বলে মনে করেন তামিম। সেজন্য নির্ভীকভাবে (ফিয়ারলেস) ক্রিকেট খেলার বিকল্প দেখছেন না এ ড্যাশিং ওপেনার। ‘কোয়ালিফাইং খেলাটা একটু কঠিন আমাদের জন্য। তিন ম্যাচের তিনটিই জিততে হবে। একটি সিøপ করলেই নানা হিসাব এসে যাবে। তবে আমার মতে, বাংলাদেশ দলকে ফিয়ারলেস ক্রিকেট খেলা উচিত। যখনই কোনো ম্যাচ নিয়ে আমরা বেশি ভাবি, তখনই দেখা যায় আমরা একটু গুটিয়ে যাই, তখনই সমস্যা সৃষ্টি হয়।’

tamimজিম্বাবুয়েতে যেমন সবাই প্রত্যাশা করে আমাদের জিততেই হবে, ওই ব্যাপারটা আমাদের মাথায় কাজ করে। কিন্তু আমরা যদি ফিয়ারলেস ক্রিকেট খেলি, তাহলে কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়। আফগানিস্তান অনেক ভালো খেলে, আমাদের লিগে ওদের কিছু ক্রিকেটার ভালো খেলেছেন। ওসব নিয়ে আমরা প্লানিং করছি। তার আগে একটা গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ আছে। ওই সিরিজে ভালো খেললে ভালোভাবেই বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে যেতে পারব আমরা’Ñ যোগ করেন তামিম।

দ্বিতীয়পর্বে খেলতে হলে বাংলাদেশকে আফগানিস্তান, নেপাল ও হংকংকে পেছনে ফেলতে হবে। তবে সেটা নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে চান না তামিম। গ্রুপপর্বে আফগানিস্তানকেই সবচেয়ে কঠিন মনে করলেও, টি-টোয়েন্টিতে কোনো ম্যাচকেই হালকাভাবে নিতে নারাজ বাঁ-হাতি এ ব্যাটসম্যান। ‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট এমন একটি খেলা যে, কোন ম্যাচ কঠিন আর কোনটি সহজ বলা কঠিন। অল্প সময়ের খেলা, যে কোনো দলই প্রতিপক্ষকে হারাতে পারে। আমরা ভালো খেললে, যে কোনো দলকে হারাতে পারি। আমাদেরও আবার যে কোনো দল হারাতে পারে। তো কোনো ম্যাচকেই আমাদের হালকাভাবে নেয়ার সুযোগ নেই। আফগানিস্তানের খেলা টিভিতে দেখেছি। আমাদের কম্পিউটার অ্যানালিস্টি নিশ্চয়ই ওদের খেলা বিশ্লেষণ করবেন। আমি এটুকু বলছি, দেশের মাটিতে আমাদের হারানো ওদের জন্য কঠিন হবে। তবে আমাদের পুরো প্রস্তুত থাকতে হবে।’

পেটের পেশিতে টান পড়ায় বিশ্রামে থাকা তামিম বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড চ্যালেঞ্জ কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলতে পারবেন না। জাতীয় দল ও বাংলাদেশ ‘এ’ দলের মধ্যে তিন ম্যাচের সিরিজটি ১০ ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে। তবে এ মাসেই ম্যাচ খেলার ফিটনেস ফিরে আসবে বলে মনে করছেন ২৪ বয়সী এ ব্যাটসম্যান। ‘আগামীকাল (আজ) ফিটনেস ক্যাম্পে প্রথম ফিটনেস টেস্ট আমি দেব। ফিজিও সেভাবেই আমাকে পরামর্শ দিয়েছেন। ম্যাচ ফিট নই এখনও। আমাদের টার্গেট ছিল, ১৫-১৬ তারিখের মধ্যে ম্যাচ ফিট হয়ে যাওয়া। এখন ব্যথাও নেই। সবকিছু ঠিক আছে। শুধু পুরোপুরি ফিট নই হয়তো। যেহেতু আমাদের হাতে সময় আছে, তাড়া নেই, তাই ফিজিও চাইছিল যে পুরো ফিট হয়েই মাঠে নামাতে। তো আশা করি, ১৬ তারিখের পরে কোনো ম্যাচ হলে খেলতে পারব।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ