Home / বিনোদন / বলিউডে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে চলচ্চিত্র বাংলাদেশ-ভারতে বিতর্ক

বলিউডে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে চলচ্চিত্র বাংলাদেশ-ভারতে বিতর্ক

ভারতীয় নির্মাতা মৃত্যুঞ্জয় দেবব্রত বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বলিউডে ‘দ্য বাস্টার্ড চাইল্ড’ নামের একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। ছবির প্রধান চরিত্রগুলোতে অভিনয় করেছেন রাইমা সেন, পবন মালহোত্রা, ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত ও ভিক্টর ব্যানার্জি। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে প্রায় দুই লাখ নারীকে ধর্ষণের শিকার হতে হয়েছিল, নিহত হয় প্রায় ৩০ লাখ মানুষ। এই অমানবিক ঘটনাগুলোই ছবিতে উঠে এসেছে।

সম্প্রতি ভারতের সেন্সর বোর্ড ছবিটি আটকে দিয়েছে। আটকে দেওয়ার কারণ হিসেবে ভারতীয় সেন্সর বোর্ড জানিয়েছে, ছবিটির টাইটেলে ‘বাস্টার্ড’ শব্দটি থাকায় তাদের যত আপত্তি। যদিও যুদ্ধ চলার সময়ে ‘বাস্টার্ড চাইল্ড’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়, তবু ভারতীয় উপমহাদেশের দর্শকরা এ শব্দ ভালোভাবে নিতে পারবে না।

সেন্সর বোর্ডের এই ব্যাখ্যায় নির্মাতা মৃত্যুঞ্জয় বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, “আমি জানি না, বোর্ড কেন এই নামের ব্যাপারে আপত্তি জানাচ্ছে। এর আগে সেন্সর বোর্ড ‘নাজায়েজ’ [১৯৯৩], ‘কামিনে’ [২০০৯] ও ‘ইনগ্লোরিয়াস বাস্টার্ডস’ [২০০৯] নামের ছবিগুলোকে তবে কিভাবে সার্টিফিকেট দিল? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের গণহত্যা নিয়ে প্রচুর ছবি নির্মিত হয়েছে হলিউডে; কিন্তু বাংলাদেশে যে গণহত্যা হয়েছে, তা নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খুব একটা আলোচনা হচ্ছে না। গণহত্যার পাশাপাশি এখানে ধর্ষণ ও ধর্মকে যুদ্ধের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। আমি কেবল এই ঐতিহাসিক বিষয়টিকে চলচ্চিত্রে তুলে এনেছি।”

এদিকে খবর বেরিয়েছে, ১৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশেও মুক্তি পাবে ছবিটি। বাংলাদেশের সেন্সর বোর্ড নাকি ছবিটিকে ‘দ্য ওয়ার চাইল্ড’ বা ‘বীরাঙ্গনা’ নামে এরই মধ্যে সেন্সর ছাড়পত্র দিয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের সেন্সর বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিশ্চিত হওয়া গেছে, এই নামের বা এসব অভিনয়শিল্পী অভিনীত কোনো ছবি তাঁরা সেন্সর ছাড়পত্র প্রদানের জন্য দেখেননি। আর সেন্সর ছাড়পত্র ছাড়া এ দেশের কোনো প্রেক্ষাগৃহে ছবি প্রদর্শন বেআইনি। তবে টেলিভিশনে প্রদর্শন করা হলে সেন্সরের প্রয়োজন পড়ে না।

পেইজ থ্রি বলিউডকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পরিচালক মৃত্যুঞ্জয় বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তির ব্যাপারে বলেন, “বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তির ক্ষেত্রে ঝামেলা হতে পারে। কিন্তু আমি চাই ছবিটি সেখানে মুক্তি পাক। কারণ আমার ছেলেবেলা কেটেছে বাংলাদেশেই। এই ছবি বাংলাদেশের জন্য আমার পক্ষ থেকে একটা ছোট্ট উপহার।”

ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের আপত্তির মুখে হয়তো মৃত্যুঞ্জয় ছবিটির নাম পরিবর্তন করবেন। সে ক্ষেত্রে বলিউডে ছবিটি মুক্তির সম্ভাব্য তারিখ ২৭ ডিসেম্বর।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ