Home / জেলার খবর / সাতক্ষীরায় আ. লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

সাতক্ষীরায় আ. লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

সাতক্ষীরা জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুরে যৌথবাহিনীর অভিযান চলার মধ্যেই আওয়ামী লীগের নেতা মোসলেমউদ্দিন আলীকে (৫৫) কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় তাঁর সঙ্গে থাকা আওয়ামী লীগের কর্মী হাশেম আলীকেও পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। পুলিশের দাবি, মোসলেমউদ্দিনকে জামায়াত-শিবির হত্যা করেছে।

আজ মঙ্গলবার বেলা তিনটার দিকে কালীগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের চৌমুহনী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত মোসলেমউদ্দিন আলী কালীগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বলে পুলিশ জানায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা দুইটার দিকে যৌথবাহিনী বিষ্ণুপুর এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় উত্তেজিত জনতা বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের জামায়াতের সমর্থক মোশাররফ হোসেনের কার্যালয় ভাঙচুর করে। যৌথবাহিনী চলে যাওয়ার পর মোসলেমউদ্দিন আলী মোটরসাইকেলে করে তাঁর বাড়ি চাচাই এলাকায় ফিরছিলেন। পথে চৌমুহনী এলাকায় জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। এ সময় মোসলেমউদ্দিন আলীর সঙ্গে থাকা আওয়ামী লীগের কর্মী হাশেম আলীকেও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে জখম করা হয়। তাঁকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আজম জানান, নিহত মোসলেমউদ্দিন আলী ও আহত হাশেম আলী আওয়ামী লীগের নেতা ও কর্মী। তিনি এ হত্যাকাণ্ডের জন্য জামায়াতকে দায়ী করেন।

এ ব্যাপারে জামায়াতের উপজেলা আমির মোসলেমউদ্দিন জানান, তাঁদের হামলায় কেউ মারা গেছে কি না, তা তাঁর জানা নেই। তিনি বলেন, জামায়াত নাশকতার রাজনীতি করে না।

যৌথবাহিনীর অভিযানে গ্রেপ্তার ১৪

সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকায় গতকাল সোমবার রাত থেকে আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত যৌথবাহিনীর অভিযানে ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে হরতাল ও অবরোধে নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগ রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাতক্ষীরার গোয়েন্দা বিভাগের পরিদর্শক (ডিএসবি) আযম খান প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, নাশকতার অভিযোগে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ