Home / জাতীয় / নির্বাচনের আগেই সরকার গঠন আওয়ামী লীগের !

নির্বাচনের আগেই সরকার গঠন আওয়ামী লীগের !

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই সরকার গঠনের নিশ্চিত হতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ১৫১ আসনে একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের আগেই নির্বাচিত হয়েছেন প্রার্থীরা। ফলে সংবিধান অনুযায়ী, সরকার গঠনে আর কোনো বাধাই রইল না। সরকার গঠন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

শনিবার সন্ধ্যায় ১৫১ জন একক প্রার্থীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। ১৫১ জন একক প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১২৭ জন, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) ১৮ জন, জাতীয় পার্টির (মঞ্জু) ১ জন, জাসদ’র ৩ জন এবং ওয়ার্কার্স পার্টির ২ জন প্রার্থী।

যদিও বাকি আসনের সদস্য নির্বাচনের জন্য ভোটগ্রহণ করতে হবে।

গতকাল শুক্রবার বিকেল পাঁচটার পর থেকেই প্রার্থীদের তালিকা চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। ৩০০ আসনের মধ্যে যেসব আসনে একজন প্রার্থী রয়েছেন কিংবা অন্যদের প্রার্থীতা বিভিন্ন কারণে বাতিল হয়েছে বা অবৈধ হয়েছে, সেসব আসনের বৈধ প্রার্থীদের একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন।

বিরোধীদল বিএনপির নির্বাচনে না আসায় এবং কোথাও প্রার্থিতা প্রত্যাহার ও মনোয়নপত্র বাতিল হয়ে যাওয়ায় সারাদেশে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এসব প্রার্থী নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

যদিও আওয়ামী লীগকে সরকার গঠন করতে হলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিকে পাশে পেতে হবে। কিন্তু জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন এরশাদ এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন দলটির প্রার্থীরা।

কিন্তু এরশাদ ও তার দলের প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করলেও তা গ্রহণ করা হয়নি। প্রত্যাহারের আবেদন গ্রহণ করা হলে বিনা ভোটে নির্বাচিত প্রার্থীর সংখ্যা আরো বাড়তো।

এদিকে সবচেয়ে কম সংখ্যক প্রার্থী নিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দশম জাতীয় সংসদের এ নির্বাচন। যাচাই বাছাই, আপিল ও প্রত্যাহার শেষে এখন পর্যন্ত ৩০০ আসনের বিপরীতে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা অতীতের সব নির্বাচন থেকেও কম।

এবারের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা পড়ে ১ হাজার ১০৭টি। যাচাই বাছাইয়ে বাদ পড়ে যায় ২৬০ জনের প্রার্থিতা। সে অনুযায়ী বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ৮৪৭ জন। পরে নির্বাচন কমিশনে প্রার্থিতা বৈধ চ্যালেঞ্জ করে আপিল করেন ১২৬ প্রার্থী। সেইসঙ্গে বৈধ ১২ প্রার্থীর বিরুদ্ধেও আপিল করা হয় কমিশনে। আপিল শুনানি শেষে ৩৭ জন তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।

অন্যদিকে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দেশের ইতিহাসে এবারই সবচেয়ে বেশি প্রার্থী এককভাবে নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। এর আগে কোনো নির্বাচনে এককভাবে এত আসনে নির্বাচিত হয়নি। ১৯৯৬ সালে বিরোধীদলকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করে তৎকালীন ক্ষমতাসীন দল বিএনপি। সে নির্বাচনেও ৪৯ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। তবে সে নির্বাচনে মোট প্রার্থী ছিলেন এবারের চেয়ে বেশি। সে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন ১ হাজার ৪৫০ প্রার্থী।

উল্লেখ্য, সংবিধান অনুযায়ী ৩০০ আসনের মধ্যে ১৫১টি আসন কোনো দল পেলে সরকার গঠন করতে পারবে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ