Home / জাতীয় / “নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে” – সিইসি

“নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে” – সিইসি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেছেন, বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন ও প্রাপ্ত খবর বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হচ্ছে।

রোববার দুপুর দুইটায় নির্বাচন কমিশন (ইসি) কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন সিইসি।

এর আগে তিনি ঢাকা-৭ আসনের বেগম বদরুন্নেসা কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি সহিংসতাকারীরা কোনো রাজনৈতিক দলের নয় বলেও মন্তব্য করেন।

নির্বাচন কমিশন মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত ব্রিঢিংয়ে রকিবউদ্দিন আহমদ বলেন, সারাদেশ থেকে নির্বাচনী খবরা-খবর আমাদের কাছে আসছে। আমরা গভীরভাবে বিষয়টি মনিটর করছি। আমি নিজেও সরেজমিনে একটি কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। সেখানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সর্তক অবস্থানে রয়েছেন বলে আমি দেখেছি। কোনো বিশৃঙ্খলা দেখিনি।

যেসব ভোটকেন্দ্রে হামলায় বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে সেগুলোতে রোববার ভোট নেওয়া হচ্ছে না। তবে যেগুলোতে ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে সেগুলোতে ভোটগ্রহণ সাময়িক বন্ধ রেখে পরে চালু করা হয়েছে বলে জানিয়ে স্থগিত থাকা ভোটকেন্দ্রগুলোতেও ২৪ জানুয়ারির আগে পর্যায়ক্রমে ভোটগ্রহণ করা হবে বলেও জানান সিইসি।

এক প্রশ্নের উত্তরে সিইসি বলেন, সারা দেশ থেকে হতাহতের কিছু খবর আমরা পাচ্ছি। আমাদের একজন প্রিজাইডিং অফিসার দুর্ঘটনায় এবং একজন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ভোটকেন্দ্রে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হয়েছেন।

এছাড়াও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা ও তাতে তাদের আহত হওয়ার খবর ইসি’র কাছে রয়েছে জানিয়ে কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেন, তাদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

নির্বাচন কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম রয়েছে, সাংবাদিকদের তুলে ধরা এমন প্রশ্নে সিইসি বলেন, কারিগরিভাবে আমরা ভোটগ্রহণের সব প্রস্তুতি নিয়েছি। ভোটার কম হওয়ার বিষয়টি কারিগরি নয়, রাজনৈতিক।

তবে ঘন কুয়াশার কারণে সকালের দিকে ভোটার কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার সংখ্যা বাড়ছে বলে জানান কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, এটা সবাই জানেন, নির্বাচনে কয়েকটি রাজনৈতিক দল অংশ নিচ্ছে না। তাই ভোটারদের উপস্থিতি কিছুটা কম হওয়াটাই স্বাভাবিক। এছাড়া উত্তরবঙ্গে শীতের কারণে ভোটার উপস্থিতি কম ছিলো।
কারণ, আমরা সকাল ৮টায় ভোট শুরু করেছি। তবে পরে ভোটার উপস্থিতি বাড়ছে। তবে কতো শতাংশ ভোট পড়বে তা দিন শেষে বলা যাবে।

সংবাদ মাধ্যমে খবর বেরিয়ে গেছে, নির্বাচন কমিশনেও তথ্য আছে, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সহিংসতা হচ্ছে, সারা দেশে ১১ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় কারা জড়িত এমন প্রশ্নের জবাবে কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেন, যারা সহিংসতায় জড়িত তারা কোনো রাজনৈতিক দলের নয়। তারা দৃর্বৃত্ত। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দৃর্বত্তরা যারাই হোক, কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।
বিচারের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

কেন্দ্র দখলের অভিযোগে ঢাকা-১৫ আসনের একজন প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন তার করা অভিযোগ যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমন আরো কিছু অভিযোগ এসেছে। সেসব অভিযোগও যাচাই করে দেখা হচ্ছে।

সসিংস ঘটনায় যেসব কেন্দ্র নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে
সেসব কেন্দ্রে সাংবিধানিক বাধ্যবাধতকার কারণে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন করা হবে। তবে এর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির বিষয়ে জানতে চাইলে সিইসি বলেন, এটি পরিবর্তনশীল। কোথাও কোথাও স্থগিত হয়ে আবার ভোট শুরু হয়েছে। তবে দিন শেষে বলা যাবে, কতোগুলো কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

নির্বাচনে অনিয়ম করলে কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ।

সাংবাদিকদের সিইসি বলেন, আমি ও আমার সহকর্মীরা নিয়মিতভাবে যোগাযোগ রক্ষা করছেন। সবাইকে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, যাতে কোনো ধরনের হেরফের না হয়। ভোটার উপস্থিতি যাই হোক, তার ওপর ভিত্তি করেই তথ্য দিতে হবে।

বিকেল চারটার পরপরই ভোট গণনা শুরু হবে জানিয়ে সিইসি বলেন, পোলিং এজেন্ট, মিডিয়া কর্মী, পরিদর্শকদের সামনেই ভোট গণনা হবে। তখনই জানানো যাবে, কতো শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে।

আজকের নিউজ আপনাদের জন্য নতুন রুপে ফিরে এসেছে। সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। - আজকের নিউজ